জম্মু-কাশ্মীরের পরিস্থিতি ক্রমশ উত্তপ্ত হয়ে উঠছে। এরই মধ্য় কাশ্মীরকে পুনর্গঠন করার প্রস্তাব দিলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। সোমবার সকালে রাজ্যসভায় ৩৭০ ধারা তুলে দেওয়ার দাবিতে সরব হন তিনি। রীতিমতো হট্টগোল লেগে যায় এই প্রস্তাব পেশের পরেই। এই প্রস্তাবে উত্তাল পরিস্থিতি কাশ্মীরে। 

জম্মু ও কাশ্মীরের উপর থেকে ৩৭০ ধারা রদ করে নেওয়া হল। লাদাখ ও জম্মু-কাশ্মীর কেন্দ্রীয় শাসনের আওতায় চলে এল। এর পাশাপাশি ৩৫ এ ধারাও তুলে দিতে চায় কেন্দ্র। 

কাশ্মীরের বেশ কিছু এলাকায় জারি হয়েছে ১৪৪ ধারা। ওমর আবদুল্লা, মেহবুবা মুফতি ও সাজ্জাত লোন-সহ কাশ্মীরের বিজেপি বিরোধী বেশ কয়েকজন এই মুহূর্তে গৃহবন্দি। কাশ্মীরের এই বিশেষ মর্যাদা তুলে নেওয়ার ফলে উপত্যকাকে কড়া নিরাপত্তার বেষ্টনীতে ঘিরে ফেলা হয়েছে। সব মিলিয়ে কাশ্মীরের অবস্থা নিয়ে সিঁদুরে মেঘ দেখছে দেশবাসী। জঙ্গিদের নিশানা থেকে বাদ নেই অন্যান্য রাজ্যগুলিও। তাই সব জায়গাতেই নিরাপত্তা ব্যবস্থা কড়া করা হয়েছে।

তবে বেশ কিছুদিন ধরেই আঁচ করা যাচ্ছিল জম্মু কাশ্মীরে বড়কিছু ঘটতে চলেছে। জঙ্গি হানার আশঙ্কায় জোরদার করা হয়েছিল উপত্যকার নিরাপত্তা। আরও আধাসেনা মোতায়েন করা হয়েছিল। পর্যটকদের ফিরিয়ে আনা হয়েছিল। বন্ধ হয়েছিল বেশ কিছু স্পর্শকাতর এলাকার স্কুল কলেজ। এর পরেই আজ সোমবার বন্ধ রদ হল ৩৭০ ধারা।