দিল্লির জলের অবস্থা মোটেই খারাপ নয়। বিআইএসের জলের রিপোর্ট  রাজনৈতিক উদ্দেশ্য প্রণেদিত বলে হুঙ্কার দিলেন দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল।  ব্যুরো অফ ইন্ডিয়ান স্টান্ডারাইজেশন সম্প্রতি একটি রিপোর্ট প্রকাশ করেছে। এই রিপোর্টে জানানো হয়েছে, কলকাতা, চেন্নাইয়ের পাশাপাশি দিল্লির জলের মান অত্যন্ত খারাপ। পানীয় জলের কোয়ালিটি প্যারামিটারের ১১টির মধ্যে প্রায় ১০টিতেই ব্যর্থ হয়েছে দিল্লি, কলকাতা ও চেন্নাইয়ের জলের মান। 

এই রিপোর্ট প্রকাশ পাওয়ার পরেই দিল্লির বিভিন্ন অংশে বিক্ষোভ দেখাল বিজেপির সমর্থকরা। সেখানে স্লোগান ওঠে, দিল্লির মানুষকে বিষ জন খেতে বাধ্য করছে আপ সরকার। কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রী তথা চাঁদনীচক লোকসভা আসনের সাংসদ হর্ষ বর্ধন  এই বিষয়ে একটি টুইট করেন। সেখানে বলেন, বিনামূল্যে জল সরবরাহের নাম করে দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী জনগণকে বিষ জল পান করাতে বাধ্য করছে।  ২০টি শহরের জলের নমুনা পরীক্ষা করে দেখা গিয়েছে, দিল্লির জল সব থেকে বিষাক্ত।  আপ সরকার উন্নয়নের লম্বা ফর্দ দেয়। কিন্তু মানুষকে সুরক্ষিত পানীয় জল দিতে পারে না বলে তিনি মন্তব্য করেন। 

রাজ্যসভায় নজির, হঠাৎ এনসিপি-র ভূয়সী প্রশংসায় মোদীর মুখে, বিজেপি-কেও বললেন দেখে শিখতে

এরপরেই কেজরিওয়াল আসরে নামেন। হর্ষবর্ধনের টুইটের উত্তরে বলেন, স্যার আপনি একজন চিকিৎসক। আপনি খুব ভালো করেই জানেন, এই রিপোর্ট মিথ্যা ও রাজনৈতিক উদ্দেশ্য প্রণেদিত।  আপনার মতো রাজনৈতিক ব্যক্তিত্বের জল নিয়ে নোংরা রাজনীতি মানায় না।  জানা গিয়েছে, বিআইএস  দিল্লির ১১টা জায়গা থেকে জল সংগ্রহ করে পরীক্ষা করে। তারপর পাইপের জলও পরীক্ষা করেন। প্রতিক্ষেত্রে জলে বিষাক্ত কিছু নমুনা পাওয়া গিয়েছে। 

প্রবল ট্রোলিং-এ ভেঙে পড়লেন, জিলিপি খাওয়াই ছেড়ে দেবেন 'নিখোঁজ' বিজেপি সাংসদ

দিল্লির ভারতীয় জনতা দলের সভাপতি মনোজ তেওয়ারি দিল্লির দূষিত জল ও দূষিত বায়ুর জন্য কেজরিওয়ালকে দায়ী করেছেন। তিনি জানিয়েছেন, দিল্লির মানুষের জীবন নিয়ে খেলছেন কেজরিওয়াল।