সোমবার থেকেই শুরু হয়েছে ভূমি পুজোর অনুষ্ঠান। বুধবার অযোধ্যার রাম মন্দিরের ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন করবেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। কিন্তু তাঁর সফর সূচি অনুযায়ী মন্দিরের অনুষ্ঠানে আগে যাওয়ার কথা হনুমানগাড়ি মন্দিরে। কিন্তু কেন? শুধু হনুমান গাড়ি মন্দির দর্শন করবেন এমনটা নয়। সেখানে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ও উত্তর প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ একটি বিশেষ পুজোও করবেন, যা হমুমানকে উৎসর্গ করা হবে। কিন্তু এর কারণ কী? 

হনুমান গাড়ি মন্দিরের দায়িত্বে থাকা মধুবন দাস জানিয়েছেন, ভগবান হনুমান ছাড়া ভগবান শ্রীরামের কোনও কাজই সম্পন্ন হয় না। রামের কোনও পুজো শুরুও হয় না হনুমান ছাড়া। আর সেই কারণেই প্রধানমন্ত্রী ও যোগী আদিত্যনাথ হনুমানগাড়ি মন্দিরে যাবেন। সেখানেই তাঁরা একটি বিশেষ পুজো করবেন, যেটি উৎসর্গ করা হবে হনুমানকে। উত্তর প্রদেশের অযোধাতেই দশম শতাব্দীর একটি হমুনাম মন্দির রয়েছে, সেখানেই প্রধানমন্ত্রী বিশেষ পুজো করবেন। 

আযোধ্যায় রাম মন্দিরের ভূমি পুজো উদযাপনের উদ্যোগ টাইমস স্কোয়ারে, বাধ সাধছে একটি মাত্র চিঠি

ট্যুইটার হ্যাকিংকাণ্ডে মাস্টারমাইন্ড ১৭ বছরের ক্লার্ক, আয় করেছিল ৭ লক্ষ মার্কিন ডলার ...
মধুবন দাস আরও জানিয়েছেন রামের প্রধান ভক্ত হনুমান। কিন্তু হনুমানের আশীর্বাদ ছাড়া কোনও কাজ এখনও পর্যন্ত করা হয় না। রাম মন্দির সুষ্ঠুভাবে নির্মাণের জন্য তাই প্রমথে হনুমানের কাছে আশীর্বাদ চাওয়া হবে। হনুমানগাড়ির প্রধান পুরোহিত মহান্ত রাজুদাস জানিয়েছেন, প্রধানমন্ত্রীর হনুমান মন্দিরে পুজোর জন্য ৭ মিনিট বরাদ্দ করা হয়েছে। তিনি আরও জানিয়েছেন সেই বিশেষ পুজোতে দেশকে করোনামুক্ত করার জন্যও প্রার্থনা করা হবে। মাত্র ৪জন পুরোহিতই প্রার্থনা করতে পারবেন। করোনা  স্বাস্থ্যবিধি মেনেই পুজো সম্পন্ন হবে বলেও তিনি জানিয়েছেন। মানা হবে নিরাপদ শারীরিক দূরত্বও। 

করোনার করাল ছায়া বিজেপি শিবিরে, আক্রান্ত একাধিক নেতা , অমিত শাহের আরোগ্য কামনা করলেন রাহুল-মমতা .

৫ অগাস্ট অযোধ্য়ায় রাম মন্দিরের ভূমি পুজো উপলক্ষ্যে রীতিমত সাজোসাজো রব পড়ে গেছে। ভিত্তি প্রস্তর স্থাপনের পরই শুরু হবে মন্দির নির্মাণের কাজ।