সোমবার থেকেই অযোধ্যায় শুরু হয়ে গিয়েছে উৎসব। গণেশ পুজোর মধ্যে দিয়ে সূচনা হয় ৩ দিন ব্যাপী ভূমি পুজোর আয়োজনের। নববধূর মত একেবারে সেজে উঠছে অযোধ্যা। আলো দিয়ে সাজানো হয়েছে মন্দির, গুরুত্বপূর্ণ ভবনগুলি। ভূমি পুজোর দিন ১.২৫ লাখ প্রদীপ জ্বলে উঠবে সরয়ূ নদীর তীর, রাম কি পৌড়ি-সহ ২৫ টি জায়গায়।  অযোধ্যআ দেখে যেন মনে হচ্ছে  ত্রেতা যুগ ফিরে এসেছে কলিতে। ভগবান রামের জীবনকাহিনী কারুশিল্পের মাধ্যমে ফুটিয়ে তোলা হয়েছে স্থানীয় দেওয়ালগুলিতে। এতসব প্রস্তুতির মধ্যেও অবশ্য রয়েছে চাপা উৎকন্ঠা। অযোধ্যা জুড়ে এখন একটাই প্রশ্ন ঘোরেফেপা করছে, বুধবার ভূমিপুজোয় আসবেন তো প্রধানমন্ত্রী।

 

 

মোদী মন্ত্রিসভার নাম্বার টু এখন করোনা আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে। অমিত শাহের করোনা সংক্রমণের পর নিয়ম অনুযায়ী প্রধানমন্ত্রীর আইসোলেশনে থাকার কথা। কিন্তু রাত পোহালেই তো অযোধ্যায় বহু প্রতীক্ষিত রামমন্দিরের ভূমি পুজো। নরেন্দ্র মোদী আইসোলেশনে গেলে সেই ভূমিপূজন কীভাবে হবে।  রবিবার থেকে এই প্রশ্নই ঘুরছে রামভক্তদের মধ্যে। তাঁদের সমস্ত উদ্বেগের অবসান ঘটিয়ে শ্রী রাম জন্মভূমি তীর্থক্ষেত্র ট্রাস্টের মহাসচিব চম্পত রায় সোমবার অবশ্য জানিয়ে দিয়েছেন, নির্ধারিত কর্মসূচি মেনে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর উপস্থিতিতে বুধবার অযোধ্যায় আয়োজিত হবে ভূমি পুজোর অনুষ্ঠান৷  প্রধানমন্ত্রী নিজে অবশ্য এই ব্যাপারে একেবারে স্পিকটি নট। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রীর করোনা পজিটিভ হওয়ার খবর আসার পর থেকে আইসোলেশন বা ভূমিপূজনে যাওয়া নিয়ে একটা কথাও শোনা যায়নি তাঁর মুখে।

আরও পড়ুন: ত্রেতা যুগের আবহ নিয়ে প্রস্তুত অযোধ্যা, কিন্তু প্রশ্নের মুখে রাম মন্দিরের ভূমি পূজনের নির্ধারিত সূচি

মোদীর উপস্থিতি নিয়ে প্রশ্ন দানা বাঁধলেও উত্তরপ্রদেশের প্রশাসনিক কর্তাদের দম ফেলার কিন্তু ফুরসত নেই। বুধবার নরেন্দ্র মোদী-সহ ভিভিআইপি-রা আসছেন ধরে নিয়েই মন্দির-শহর অযোধ্যাকে মুড়ে ফেলা হচ্ছে নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তায়। রাস্তাঘাট জীবাণুমুক্ত করা থেকে আমন্ত্রণপত্র পাঠানোর কাজ, প্রায় সারা। সোমবার প্রস্তুতি খতিয়ে দেখতে অযোধ্যা এসেছিলেন মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথও। কিন্তু  প্রধানমন্ত্রী শেষমেশ রামমন্দিরের শিলান্যাসে আসবেন কি না, সেই জিজ্ঞাসা এখন অযোধ্যার প্রতিটি মানুষের মুখে মুখে।

এমনিতেই বহু বাধা, বিপত্তি পেরিয়ে অযোধ্যায় রাম মন্দিরের ভূমি পুজোর আয়োজন হয়েছে। কিন্তু অনুষ্ঠানের ২৪ ঘণ্টা আগেও বিষয়টি নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর নিশ্চুপ থাকা টেনশন আরও বাড়িয়ে দিচ্ছে সকলের। সরকারি ভাবে কিছু জানায়নি তাঁর দফতর। সেখান থেকে শুধু বলা হচ্ছে, এখনও পর্যন্ত প্রধানমন্ত্রীর সফরসূচি পাল্টায়নি। যা ছিল, তা-ই আছে। কিন্তু ধোঁয়াশা থেকেই যাচ্ছে। 

আরও পড়ুন: গোটা বিশ্বে বিতরণ করা হবে ভূমি পুজোর প্রসাদ, অযোধ্যায় তৈরি হল ১ লক্ষ ১১ হাজার লাড্ডু

বর্তমানে  দেশে প্রতিদিন  গড়ে ৫০ হাজারেরও বেশি মানুষ করোনা আক্রান্ত হচ্ছেন, সেখানে এই সময় রাম মন্দিরের রাজকীয় ভূমিপূজন নিয়ে প্রশ্ন অবশ্য থেকেই যাচ্ছে। তৈরি হয়েছে বিরর্কও। ইতিমধ্যে রামমন্দিরের পুরোহিত ও একাধিক নিরাপত্তাকর্মী করোনা আক্রান্ত। উত্তরপ্রদেশ মন্ত্রিসভাতেও পড়েছে মারণ ভাইরাসের কড়াল থাবা। ইতিমধ্যে এক মন্ত্রীর মৃত্যু হয়েছে, আরেক সদস্য চিকিৎসাধীন। তারপরেও অবশ্য আইসোলেশনের বদলে অযোধ্যায় প্রস্তুতি দেখতে এসেছেন মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ।