জয় এসে গিয়েছে। এবার ঘর গোছানোর পালা। ঠিক কেমন হবে মন্ত্রিসভা,  কে কোন দায়িত্ব পাবেন,  এই নিয়ে আলোচনা করতেই নরেন্দ্র মোদী এবং অমিত শাহ পরস্পরের সঙ্গে কথা চালাচালি করলেন।

 নিছক এক ঘন্টা-দেড় ঘন্টা নয় ম্যারাথন মিটিং চলল ৫ ঘন্টা ধরে।  প্রধানমন্ত্রীর নিজস্ব নিবাস সাত নম্বর লোক কল্যাণ মার্গে এই বৈঠক চলল। 

বিজেপির অভ্যন্তরে বেশ কয়েক দিন ধরে কথা হচ্ছে অমিত শাহ-এর পরবর্তী রাজনৈতিক পদমর্যাদার নিয়ে।  দলের জয়ে তাঁর কৃতিত্ব কুর্নিশ ছিনিয়ে নিয়েছে গোটা দেশের সংগঠনের কর্মীদের।  অনেকেই বলছেন, শাহকে এবার আর দলের সংগঠক নয়, মন্ত্রিসভায় দেখতে চাইছেন মোদী। 

অনুমান করা হচ্ছে ,এদিন এসব বিষয় নিয়েই খোলামেলা আলোচনা হলো বিজেপির দুই প্রধান মাথার।  রাজনৈতিক মহলে তীব্র গুঞ্জন, এবার হয়তো মন্ত্রিসভায় দেখা যাবে অমিত শাহ -কেও।

আরও পড়ুুতে ক্লিক করুনঃ নেতাজীকে দেশের প্রথম প্রধানমন্ত্রী হিসেবে মর্যাদা দিতে চায় নতুন সরকার
নতুন কিছু খুঁজতে যাবেন না! 'পিএম নরেন্দ্র মোদী'-তে নমো শুধুই দেশপ্রেমিক

এবারের মন্ত্রিসভায় সব থেকে বড় চমক বাংলা এবং তেলেঙ্গানা।  রবিশংকর প্রসাদ, নির্মলা সীতারামন, রাজনাথ সিং, নীতিন গড়করি, পীযূষ গোয়েল, নরেন্দ্র সিং তোমার, প্রকাশ জাভেদকারের মতো অভিজ্ঞ পুরনো সদস্যরা তো থাকবেনই,  এবার মন্ত্রিসভায় বাংলার গেরুয়া উত্থান চোখে পড়বে সব থেকে বেশি। 

দেখা যেতে পারে আকালি দলের হারসিমরত কৌর বাদল এবং এলজিপি রামবিলাস পাসওয়ানকে।  গত মঙ্গলবারই বিবৃতি দিয়ে জানানো হয়েছে দলের  প্রেসিডেন্ট রামবিলাস পাসোয়ান মোদি সরকারের লোকজনশক্তি পার্টির প্রতিনিধি হতে পারেন। 

সূত্রের খবর, নতুন সরকারের সমস্ত স্বল্পমেয়াদী এবং দীর্ঘমেয়াদী পরিকল্পনাগুলি ও ইতিমধ্যে সেরে ফেলেছেন নরেন্দ্র মোদী ও অমিত শাহ।