সোশ্যাল মিডিয়ার পোস্ট ঘিরে রাতের অন্ধকারে রণক্ষেত্রের চেহারা নেয় গার্ডেন সিটি বেঙ্গালুরু। নিমেষেই অগ্নিগর্ভ হয়ে পড়ে গোটা এলাকায়। পুলিশের গুলিতে মৃত্যু হয় তিন জনের। কিন্তু সেই রাতের অন্ধকারেই ডিজে হাল্লি পুলিশ স্টেশন সংলগ্ন একটি মন্দিরের সামনে জড়ো হয়েছিলেন স্থানীয় সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের মানুষ।  হিংসার রাতে তাঁরা কী করছিলেন মন্দিরের সামনে। যে ভিডিও ইতিমধ্যেই ভাইরাল হয়েছে নেট দুনিয়ায়। 

প্যাংগং দোপসাং ছাড়তে নারাজ লাল ফৌজরা, সীমান্ত উত্তাপ কমাতে কূটনৈতিক আলোচনার দিকে ভারত ...

হিংসা উন্মত্ত দুষ্কৃতীদের হাত থেকে বেঙ্গালুরুতে এই মন্দিরটি বাঁচাতে উদ্যোগ নেন মুসলিম সম্প্রদায়ের বহু মানুষ। ধর্মস্থানে হিংসা ছাড়ানোর পথে বাধা হয়ে দাঁড়িয়ে থেকে তাঁরা সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির বার্তা দিলেন। মানব বন্ধন করে তাঁরা রাতের অন্ধকারে হিংসার হাত থেকে মন্দিরটি রক্ষা করেন। আর সেই ভিডিওটি ইতিমধ্যেই ভাইরাল হয়ে যায় নেট দুনিয়ায়। 

 

স্থানীয় বাসিন্দাদের কথায় ডিজে হাল্লি থানা এলাকায় হিংসার আঁচ ছিল সবথেকে বেশি। দুষ্কৃতীরা এলাকায় অবস্থিত একটি মন্দিরে ঢুকতে চেয়েছিল বলে অভিযোগ। তাই পরিস্থিতি যাতে হাতের বাইরে না চলে যায় তারজন্য পথে নামেন স্থানীয় সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের মানুষ। নিজেদের জীবন বিপন্ন করে রক্ষা করেন ধর্মস্থান। মন্দির বাঁচাতে অংশগ্রহণকারীদের কথায় তাঁরা সকলেই দীর্ঘদিন ধরে ভাইবোনের মত একসঙ্গে থেকেছেন। ধর্মের বিরুদ্ধে তাঁদের কোনও ক্রোধ নেই। কিন্তু মন্দির রক্ষার পাশাপাশি রাষ্ট্রীয় স্বয়ং সেবক সংঘের মতাদর্শ জোরকরে তাঁদের ওপর চাপিয়ে দেওয়া না বলেও বার্তা দিয়েছেন এলাকার মানুষ। এক ব্যক্তির কথায় এর আগেও একাধিকবার এই জাতীয় ঘটনা ঘটেছে। তখনও তাঁরা মন্দিরটি রক্ষা করেছেন। মন্দিরটিকে ও স্থানীয় হিন্দুদের তাঁরা শ্রদ্ধা করেন বলেও জানিয়েছেন। পাশাপাশি তাঁরা জানিয়েছেন চরমপন্থী মানসিকতার বিরুদ্ধেই তাঁরা লড়াই চালিয়ে যাচ্ছেন। 

সনিয়া-রাহুলের সামনেই প্রণবকে সার্টিফিটেক মনমোহনের,বলেছিলেন প্রধানমন্ত্রী হিসেবে তাঁর থেকে যোগ্য ...

এই ঘটনা সামনে আসার পরই কংগ্রেস নেতা শশী থারুর সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের মানুষকে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন। পাশাপাশি দোষীদের শাস্তির দাবিও জানিয়েছেন তিনি।