করোনা ভাইরাসের উপসর্গ নিয়ে বিহারের হাসপাতালে চিকিৎসাধীন এক তরুণী। বিহারের ছাপড়ার বাসিন্দা একতা কুমারী গত সপ্তাহেই চিন থেকে ভারতে ফিরেছেন। বর্তমানে বিহারের পাটনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে তাঁর চিকিৎসা চলছে। চিকিৎসকরা জানিয়েছেন তাঁর শরীরের করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার সব লক্ষ্মণ রয়েছে।

আরও পড়ুন: ঘুরে বেড়ালেই মিলবে পুরস্কার, ভ্রমণে উৎসাহ দিতে নতুন ঘোষণা মোদী সরকারের

গত ২২ জানুয়ারি তিয়ানজিন থেকে  কলকাতা বিমানবন্দরে নামেন ২৯ বছরের  একতা। এরপর ট্রেনে ছাপড়া আসেন  তিনি। চিনের তিয়ানজিন বিশ্ববিদ্যালয় থেকে রিসার্চ শেষ করলেন একতা। ছাপড়ায় শান্তিনগর কলোনিতে ফেরেন তিনি। তারপর থেকেই জ্বরে আক্রান্ত হয়ে পড়েন ওই তরুণী। প্রথমে তাঁকে ছাপড়ার সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখান থেকে রবিবার রাতেই  পাটনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হয়। 

আরও পড়ুন: চিনে করোনায় মৃতের সংখ্যা ছাড়াল ৮০ , সরকারি ভাবে আক্রান্ত ২,৭০০

একতার শরীরে লক্ষণ দেখা গেলেও তা যে পুরোপুরি করোনা ভাইরাস সেবিষয়ে নিশ্চিত হওয়া যায়নি। জানিয়েছেন বিহারের স্বাস্থ্যসচিব সঞ্জয় কুমার। কলকাতা থেকে ছাপড়ার ট্রেনযাত্রার সময়ই জ্বর আসে একতার। নিশ্চিত হতে তরুণীর রক্তের নমুনা পরীক্ষার জন্য পুণের ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অফ ভাইরোলজিতে  পাঠানো হয়েছে। 

বৌদ্ধ ধর্মস্থান দেখতে বিহারে প্রচুর চিনা পর্যটক এসে থাকেন। সেই কারণে পাটনা বিমানবন্দরে চিন থেকে আসা পর্যটকদের  স্বাস্থ্য পরীক্ষার পথে এগোচ্ছে বিহার সরকার। থার্মাল স্ক্রিনিং-এর ব্যবস্থা যাতে করা হয় সেই বিষয়ে আবেদন জানান হয়েছে বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষের কাছে। পাশাপাশি নেপাল সীমান্ত সংলগ্ন বিহারের সাত জেলাতেও নজরদারি বাড়ান হচ্ছে। 

 

 

এর আগে রাজস্থানে বছর কুড়ির এক যুকের শরীরে করোনা ভাইরাসের লক্ষ্মণ ধরা পড়ে। জয়পুর সরকারি হাসপাতালে তাঁর চিকিৎসা চলছে। কয়েকদিন আগেই চিন থেকে দেশে ফেরেন ওই যুবক। তাঁর রক্তের নমুনাও পুণের গবেষণাগারে পাঠান হয়েছে। চিন থেকে এদেশে ফেরা  কমপক্ষে ১১ জন যাত্রীকে ২৮ দিনের জন্য পর্যবেক্ষণে রাখা হয়েছে।