দিল্লির দূষণ নিয়ে চর্চা চলছে দেশজুড়ে। তার মধ্য়েই নতুন তত্ত্ব নিয়ে হাজির হলেন উত্তরপ্রদেশের এক বিজেপি নেতা। দূষণের জন্য দিল্লিবাসী বা সরকারি উদাসীনতাকে দায়ী না করে তিনি সরাসরি আঙুল তুলেছেন প্রতিবেশী পাকিস্তান এবং চিনের দিকে। ওই নেতার আশঙ্কা, পাকিস্তানের ছড়িয়ে দেওয়া বিষাক্ত গ্যাস থেকেই দিল্লিতে দূষণ ছড়াচ্ছে বলে তাঁর আশঙ্কা। 

বিনীত আগওয়াল শারদা নামে ওই বিজেপি নেতা মেরঠে দাবি করেছেন, 'যে বিষাক্ত হাওয়া বইছে, এটা আসলে বিষাক্ত গ্যাস হতে পারে। হয়তো প্রতিবেশী দেশ ভয় পেয়ে গিয়ে এই গ্যাস ছেড়ে দিয়েছে। আমার তো মনে হয় পাকিস্তান আর চিন আমাদের ভয় পাচ্ছে।'

এখানেই থেমে না থেকে তিনি বলেন, 'পাকিস্তান সত্যিই আমাদের দেশে কোনও বিষাক্ত গ্যাস ছড়িয়ে দিয়েছে কি না, তা আমাদের ভালভাবে খতিয়ে দেখা উচিত।'

শারদা মনে করছেন, যবে থেকে নরেন্দ্র মোদী প্রধানমন্ত্রী এবং অমিত শাহ স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী হয়েছেন, তখন থেকেই হতাশায় ভুগছে পাকিস্তান। যেহেতু সম্মুখ সমরে তারা জিততে পারছে না, তাই ভারতকে বিপাকে ফেলতে পাকিস্তান সব ধরনের কৌশল প্রয়োগ করছে বলেই মত তাঁর। বিজেপি নেতা বলেন, 'যখনই পাকিস্তান ভারতের বিরুদ্ধে কোনও যুদ্ধে লড়েছে, হেরে গিয়েছে। যবে থেকে নরেন্দ্র মোদী এবং অমিত শাহ দায়িত্ব নিয়েছেন, পাকিস্তান হতাশায় ভুগছে।'

পাকিস্তানের দিকে আঙুল তোলার পাশাপাশি দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরীওয়ালেরও সমালোচনা করেছেন ওই বিজেপি নেতা। দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অভিযোগ করেছিলেন, রাজ্য পঞ্জাব এবং হরিয়ানায় কৃষকরা খড় পোড়ানোয় দিল্লির দূষণের মাত্রা বেড়ে যাচ্ছে। কেজরীবালের সমালোচনা করে ওই বিজেপি নেতা বলেন, 'কৃষকরা আমাদের দেশের মেরুদণ্ড। দূষণের জন্য কৃষক এবং কল কারখানাকে দায়ী করা উচিত নয়।'

ওই বিজেপি নেতার অবশ্য বিশ্বাস, মহাভারতের কৃষ্ণ এবং অর্জুনের মতোই নরেন্দ্র মোদী এবং অমিত শাহ জুটি সব সমস্যার সমাধান করতে পারেন। অচিরেই তাঁরা দিল্লির দূষণের সমস্যাও মিটিয়ে ফেলবেন।