ফের বিতর্কে এক বিজেপি বিধায়ক। সিএএ ও এনআরিস নিয়ে দেশ জোড়া চলছে বিক্ষোভ আন্দোলন। তাতেই অংশ নিয়েছিলেন ১০২ বছরের স্বাধীনতা সংগ্রামী এইচএস দোরেস্বামী। আর সেই অপরাধেই তাঁকে পাকিস্তানি এজেন্ট বলে আখ্যায়িক করেন বিজয়পুরার বিজেপি বিধায়ক বসনগৌড়া পাতিল ইয়াতনাল। যা নিয়ে গোটা কর্ণাটক জুড়ে তৈরি হয়েছে তীব্র প্রতিক্রিয়া।

বিভিন্ন সামাজিক সংগঠনগুলির পাশাপাশি কর্ণাটকের বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলিও বিজেপি বিধায়কদের এমন মন্তব্যের প্রতিবাদে পথে নেমেছ। সোমবার বেঙ্গালুরুর মৌর্য সার্কেলে এর প্রতিবাদে বিক্ষোভের আয়োজন করেছিল প্রজাধিকার হরাতে সমিতি। তাদের একটাই দাবি এই মন্তব্যের জন্য ক্ষমা চাইতে হবে বিজেপি বিধায়ককে। 

আরও পড়ুন: মৃত আইবি অফিসারের পরিবারকে ১ কোটি, ক্ষতিপূরণ দিচ্ছেন কেজরি

বিজেপি বিধায়কের কুকথার প্রতিবাদে এই সত্যাগ্রহ চলবে বলেই জানাচ্ছেন আন্দোলনকারীরা। সিপিআই(এম), দলিত সংঘরসহন সমিতি, গ্রামসেবা সংঘ, দোরেস্বামী ফ্যান অ্যাসোসিয়েশন সহ একাধিক সামাজিক সংগঠন ইয়াতনালের মন্তব্যের প্রতিবাদে গত ২৬ ফেব্রুয়ারি থেকে বিক্ষোভ দেখাচ্ছে।

আরও পড়ুন: করোনা নিয়ে নাজেহাল বিশ্ব, চটজলদি সমাধান দিলেন যোগী আদিত্যনাথ

এরআগে অন্য রাজনৈতিক দলগুলি ক্ষমতায় থাকাকালীনও বিভিন্ন দাবিতে পথে নেমে আন্দোলন করতে দেখা গেছে ১০২ বছরের স্বাধীনতা সংগ্রামী দোরেস্বামীকে। নাগরিকত্ব আইনের প্রতিবাদে এবার সরব হয়েছেন এই শতায়ু স্বাধীনতা সংগ্রামী। আর তার পরেই ২৫ ফেব্রুয়ারি তাঁকে পাকিস্তানি এজেন্ট বলে কটাক্ষ করেন বসনগৌড়া পাতিল ইয়াতনাল। 

বিজেপি বিধায়কের এমন মন্তব্যে নিঃশর্ত ক্ষমার দাবি জানিয়েছে কংগ্রেসও। পাশাপাশি তাঁকে বিধায়ক পদ থেকে সরিয়ে দিক বিজেপি এমন দাবি করা হচ্ছে। যদিও রাজ্যজুড়ে বিক্ষোভ চলার পর দমে যাননি বিজেপি বিধায়ক। গত ২৯ ফেব্রুয়ারিও ফের দোরেস্বামীর বিরুদ্ধে বিষদগার করেন তিনি।