উদ্দেশ্য গঙ্গায় স্নান সেরে  মন্দিরে পুজো দেওয়া। সেই কারণেই উত্তর প্রদেশের হাথরাস থেকে বুলন্দশহরে এসেছিল একটি পরিবার।  রাতে মন্দির বন্ধ থাকায় ফুটপাথেই আশ্রয় নিয়েছিল তারা। সেই আশ্রয়ই ডেকে আনল তাদের নিয়তি। যার জেরে বাসে পিষ্ট হয়ে মৃত্যু হল ওই পরিবারের সাত সদস্যের ।মৃতদের মধ্যে রয়েছে তিন শিশু ও চার মহিলা। 

জানা গিয়েছে, ওই পরিবার রাতে ফুটপাথের ওপরেই শুয়েছিল। উদ্দেশ্য ছিল ভোরবেলা মন্দির খুললেই আগেভাগে পুজো দিয়ে তারা বিদায় নেবেন। পরিবারটি তখন ঘুমিয়েছিল, সেই সময় সেখানে এসে পড়ে একটি বাস। কিছু বুঝে ওঠার আগেই ফুটপাথে শুয়ে থাকা ওই পরিবারের ওপরে বাসের চাকা উঠে যায়। ঘটনাস্থলেই ঘুমন্ত অবস্থায় পিষ্ট হয়ে মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়েন সাত জন। প্রত্যক্ষদর্শীদের মতে, প্রচণ্ড গতিতে বাসটি আসছিল। বাসের যাত্রীদেরও মতে, চালক ঘুমিয়ে পড়ায় গতির ওপর নিয়ন্ত্রণ রাখতে পারেনি। যার ফলে ফুটপাথের ওপরে বাসটি উঠে যায়। 
 
ঘটনায় তদন্তে নেমেছে পুলিশ। ঘাতক বাসের চালক পলাতক। তাঁকে খুঁজতে পুলিশ ইতিমধ্যে জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করেছে।  প্রাথমিকভাবে জানা গিয়েছে, ঘাতক বাসটির যাত্রীরা বৈষ্ণদেবী থেকে ফিরছিলেন।