সম্প্রতি অর্থমন্ত্রকেরর তরফ থেকে একটি নির্দেশিকা জারি করে বলা হয়েছে যে, কেন্দ্রীয় সরকারের কিছু উচ্চ পদস্থ আধিকারিকের জুন মাসের বেতন মিলবে খানিক দেরিতে। অর্থমন্ত্রকের নগদ টাকার ঘাটতির কারণেই দেরি হবে বলে জানা গিয়েছে।

কিন্তু সবথেকে উল্লেখেযোগ্য বিষয় হল, কেন্দ্রীয় সরকারের তরফ থেকে প্রকাশিত এই গোপন নির্দেশিকা ফাঁস হওয়ার ফলে চরম অস্বস্তিতে পড়েছে মোদী সরকার। কিন্তু গতকাল থেকে সোশ্য়াল মিডিয়া সকলেরর হাতে হাতে ঘুরছে এই নির্দেশিকা। আর তার জেরেই কেন্দ্রীয় সরকারি কর্মচারীদের কপালে পড়েছে চিন্তার ভাঁজ। 

অর্থমন্ত্রকের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, এই নির্দেশিকা কেবলমাত্র কন্ট্রোলার অব জেনারেল অ্যাকাউন্টস, পাবলিক ফিনান্সিয়াল ম্যানেজমেন্ট সিস্টেমস প্রজেক্ট সেলে কর্মরত গ্রুপ এ এবং গ্রুপ বি-র উচ্চপদস্থ আধিকারিকদের জন্য প্রজোয্য। তবে গ্রুপ সি ও অন্যান্য নিম্নপদস্থ কর্মচারী জুন মাসে ঠিক সময়েই বেতন পাবেন। তবে বেতন দেরি হওয়ার কারণ হিসাবা জানা গিয়েছ, সরকারি কোষাগার থেকে টাকা তোলা সংসদের অনুমোদন সাপেক্ষ। সেইমতো এপ্রিল থেকে জুলাই পর্যন্ত সরকারি কোষাগার থেকে প্রায় ৩৪ লক্ষ কোটি টাকা তোলার অনুমতি মিলেছিল। কিন্তু অর্থমন্ত্রকের দাবি, সময়ের  আগেই সেই টাকা খরচ হয়ে যাওয়ার জন্যই এই সমস্যা দেখা দিয়েছে। 

প্রসঙ্গত আগামী ৫ জুলাই সংসদে পুর্ণাঙ্গ বাজেট পেশ করার পরই পুনরায় সরকারি কোষাগার থেকে টাকা তোলার অনুমোদন মিলবে আর তারপরই ওইসব উচ্চপদস্থ অফিসারদের বকেয়া টাকা দিয়ে দেওয়া হবে।