মহারাষ্ট্রে বিধানসভা নির্বাচনের ফলাফল ঘোষণা হওয়ার পরেই মুখ্যনমন্ত্রীর আসনে ভাগ চেয়েছিল শিবসেনা। আড়াই বছরের জন্য বিজেপি থেকে মুখ্যমন্ত্রী হবে, আড়াই বছরের জন্য শিবসেনা থেকে মুখ্যমন্ত্রী হবে। এর জেরেই  বিরোধের সৃষ্টি হয়। তাতেই ভেঙে যায় শিবসেনার সঙ্গে জোট। কংগ্রেস ও এনসিপির সঙ্গে শিবসেনা মহারাষ্ট্রে সরকার গঠনের চেষ্টা করছে। কিন্তু সেখানেও সমস্যা দেখা দিয়েছে। শিবসেনার দরাদরিতে ভেস্তে যেতে পারে মহারাষ্ট্রে নয়া জোট গঠনের সম্ভাবনা। এই পরিস্থিতিকেই কাজে লাগাতে চেয়েছে বিজেপি আইটি সেল। সোশ্যাল মিডিয়ায় হ্যাসট্যাগ ব্যবহার করে বিজেপির আইটি সেল মহারাষ্ট্রের ফের নির্বাচনের ডাক দিয়েছে। মহারাষ্ট্রের অনেক শিল্পী একে সমর্থনও করেছে। যার জেরে বেজায় চটেছে  কংগ্রেস। 

একটি সাংবাদিক বিবৃতিতে কংগ্রেসের তরফে অভিযোগ জানানো হয়েছে,  মহারাষ্ট্রে ফের নির্বাচনের দাবি জানিয়ে বিজেপি সোশ্যাল মিডিয়ায় একটি হ্যাসট্যাগ ব্যবহার করছে। এই হ্যাসট্যাগ প্রচার করতে বিজেপি আইটি সেল মারাঠি শিল্পীদের স্টারডম অপব্যবহার করছে বলে মহারাষ্ট্রের কংগ্রেসের তরফে অভিযোগ করা হয়েছে। মহারাষ্ট্রে কংগ্রেসের সাধারণ সম্পাদক  এবং মুখপাত্র সচিন সাওয়ান্ত একটি স্ক্রিনশট প্রকাশ করেছেন। সেখানে দেখা গিয়েছে, হ্যাসট্যাগ পুনর্নির্বাচন দাবি করে করে বহু মারাঠি শিল্পী মহারাষ্ট্রে ফের  নির্বাচনের ডাক দিয়েছেন।  

সাওয়ান্ত অভিযোগ করেছেন, মহারাষ্ট্রে বর্তমান রাজনৈতিক পরিস্থিতি ব্যবহার করে বিজেপি ফায়দা তুলতে চাইছে। এক বিবৃতিতে তিনি  এই পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশের সাহায্য নেবেন বলেও জানানো হয়েছে।  তিনি দাবি করেছেন, বিজেপির আইটি সেল কেন এই হ্যাসট্যাগ প্রচার করছে, তা স্পষ্ট। 

টুইটারে হ্যাসট্যাগ পুনর্নির্বাচন এখন ট্রেন্ডিং মুম্বইয়ে। বহু মানুষ এই হ্যাসট্যাগে বিজেপিকে সমর্থন করেছে। শিবসেনার কংগ্রেস ও এনসিপির সঙ্গে জোটকে কটাক্ষ করে বহু মানুষ এই হ্যাসট্যাগ ব্যবহার করে সমালোচনা করেছেন।