ক্রমেই এদেশে ভয়ানক হচ্ছে পরিস্থিতি। বৃহস্পতিবার ফের একবার লাফিয়ে বাড়ল করোনা আক্রান্তের সংখ্যা। এখনও পর্যন্ত এদেশে ৭৩ জনের শরীরে কোভিড-১৯ ভাইরাস পাওয়া গিয়েছে বলে স্বাস্থ্যমন্ত্রক সূত্রে জানা যাচ্ছে। পরিস্থিতি মোকাবিলায় ১৫ এপ্রিল পর্যন্ত সমস্ত ভিসা বাতিল করে দিয়েছে ভারত সরকার। প্রয়োজন ছাড়া ভারতীয়দের বিদেশে যেতে নিষেধ করা হচ্ছে। 

করোনা মোকাবিলায় কেন্দ্র আরও বড় পদক্ষেপ করতে চলেছে বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী হর্ষ বর্ধন। মন্ত্রী জানান দেশের সব বিমানবন্দরেই স্ক্রিনিং শুরু হয়েছে। এই পরিস্থিতিতে সকলকে পাশে থাকার আবেদন  জানিয়েছেন ডক্টর হর্ষ বর্ধন। দেশের ৫১টি  গবেষণাকরোনাকে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা হু বিশ্বব্যাপী মহামারী ঘোষণার পর হরিয়ানা সরকারও নিজেদেক রাজ্যে সেই পথে এগিয়েছে।

আরও পড়ুন: মুম্বইতে এবার করোনার থাবা, দেশে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে ৬৮, পিছোতে পারে আইপিএল ম্যাচ

এদিকে বৃহস্পতিবার সংসদে কেন্দ্রীয় বিদেশমন্ত্রী এস জংশকর জানান, ইরানে আটকে রয়েছে ৬ হাজার ভারতীয়। এদের মধ্যে মহারাষ্ট্র ও জম্মু-কাশ্মীরের ১,১০০ জন পূণ্যার্থী রয়েছেন। রয়েছেন ৩০০ জন পড়ুয়াও। ভারত সরকার সকলকেই দেশে ফিরিয়ে আনার চেষ্টা চালাচ্ছেন বলে আশ্বস্ত করেছেন কেন্দ্রীয়মন্ত্রী।

তবে করোনা নিয়ে নিজের উদ্বেগ চেপে রাখেননি বিদেশমন্ত্রী। সংসদে জয়ংশকর জানিয়েছেন, "অভুতপূর্ব পরিস্থিতিতে অভুতপূর্ব প্রস্তুতি নিতে হবে।" সাধারণ মানুষের উদ্দেশে বিদেশমন্ত্রীর আহ্বান, "খুব জরুরি প্রয়োজন ছাড়া বিদেশে যাবেন না।"

আরও পড়ুন: বিশ্বে মহামারীর আখ্যা করোনাকে, জেনে নিন কেন এপিডেমিক না হয়ে প্যানডেমিক হল কোভিড-১৯

দেশে এখনও পর্যন্ত ৭৩ জনের শরীরে করোনার ভাইরাস পাওয়া গিয়েছে। এদের মধ্যে ৬ জন রাজধানীর বাসিন্দা। হরিয়ানায় চিকিৎসারত রয়েছেন ১৪ জন। এরা সকলেই বিদেশি নাগরিক। কর্মাটকে কোভিড-১৯ এ আক্রান্ত ৪ জন। কেরলে আক্রান্তের সংখ্যা ১৭। মহারাষ্ট্রে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ১১। রাজস্থানে চিকিৎসা চলছে ৩ জনের। এদের মধ্যে ২ জন বিদেশি নাগরিক। উত্তরপ্রদেশে করোনা ভাইরাসের দেখা মিলেছে ১১ জনের দেহে। এদের মধ্যে ১ বিদেশি নাগরিক।