রাজনীতিতে বরাবরই বিজেপি বিরোধী হিসাবে পরিচিত দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল। ২০১৪ সালে লোকসভা ভোটের সময় মোজীর বিরুদ্ধে ভোটে দাঁড়িয়েছিলেন কেজরি। এমনকি এবারের বিধানসভা ভোটে সেই বিজেপিকেই একেবারে ধুয়েমুছে সাফ করে দিল্লির মুখ্যমন্ত্রীর আসনে বসেছেন কেজরি। আর সেই কেজরির মুখেই এবার শোনা গেল বিজেপি বন্দনা। বাদ গেল না কংগ্রেসও। তবে রাজধানীর করোনা যুদ্ধে আম আদমি পার্টির পাশে থাকার জন্যই বিজেপি ও কংগ্রেসকে এই ধন্যবাদ জানালেন দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী।

 

সাংবাদিক সম্মেলন কেজরিওয়াল বলেন, "যদি দিল্লি সরকার ঠিক করত কোভিড ১৯-এর বিরুদ্ধে একাই লড়বে, তাহলে পরাজয় নিশ্চিত ছিল। সেই কারণেই কেন্দ্রীয় সরকার, এনজিও ও ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান সকলের সাহায্য আমরা চেয়েছি। এই লড়াইয়ে পাশে থাকার জন্য বিজেপি, কংগ্রেস সহ সব দলকেই আমি ধন্যবাদ জানাই।"

এই প্রসঙ্গেই দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী বলেন, যেহারে সংক্রমণ ছড়াচ্ছিল তাতে ধারনা করা হচ্ছিল ১৫ জুলাইয়ের মধ্যে রাজধানীতে আক্রান্তের সংখ্যা ২ লক্ষ ২৫ হাজার ছাড়িয়ে যাবে। তবে সকলের সহযোগিতাতেই সংক্রমণের সেই গতি আটকানো গিয়েছে। বর্তমানে দিল্লিতে আক্রান্তের সংখ্যা যা ধারণা করা হয়েছিল তার অর্দ্ধেকে এসে থেমেছে। 

 

স্বাস্থ্যমন্ত্রকের দেওয়া পরিসংখ্যান অনুযায়ী বর্তমানে দিল্লিতে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ১ লক্ষ ১৫ হাজার ৩৪৬। তবে এরমধ্যে ইতিমধ্যে সুস্থ হয়ে উঠেছেন ৯৩,২৩৬। ফলে দেশের রাজধানীতে এখন সক্রিয় আক্রান্তের সংখ্যা ১৮,৬৬৪। কোভিড ১৯ দিল্লিতে প্রাণ কেড়েছে ৩,৪৪৬ জনের। 

এই অবস্থায় দিল্লির করোনা পরিস্থিতি পুরোপুরি নিয়ন্ত্রণে বলেই দাবি করছেন অরবিন্দ কেজরিওয়াল। সাংবাদিক সম্মেলনে এদিন কেজরি বলেন, গত পয়লা জুন দিল্লিতে করোনা চিকিৎসরা জন্য ৪,১০০টি বেড ছিল। বর্তমানে সেই সংখ্যা বেড়ে ১৫,৫০০ হয়েছে। আইসিইউ বেড রয়েছে ২,১০০। তার মধ্যে ১,১০০ ফাঁকা পরে রয়েছে। এমনকি কোভিড হাসপাতালগুলিতে ১১ হাজারেরও বেশি বেডে এখন রোগী নেই বলেই জানান কেজরি।