দেশে করোনা সংক্রমণ বৃদ্ধির গ্রাফে কোনও পরিবর্তন নেই। বৃহস্পতিবার সকালে দেশে আক্রান্তের সংখ্যা পেরিয়ে গেল ১ লক্ষ ৫৮ হাজারের গণ্ডি। স্বাস্থ্যমন্ত্রকের দেওয়া পরিসংখ্যান অনুযায়ী বর্তমানে দেশে আক্রান্তের সংখ্যা ১ লক্ষ ৫৮ হাজার ৩৩৩। গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে সংক্রমণের শিকার হয়েছেন ৬,৫৬৬ জন।

 

 

স্বাস্থ্য মন্ত্রকের দেওয়া পরিসংখ্যান অনুযায়ী এই নিয়ে টানা ৭দিন দেশে প্রতিদিন আক্রান্তের সংখ্যা ৬ হাজারের গণ্ডি পেরিয়ে গেল। গত ২২ মে ভারতে করোনা সংক্রমণের শিকার হয়েছেলিন ৬,০৮৮ জন। মঙ্গলবার দিন সংখ্যা পৌঁছে যায় ৬,৫৩৫-এ, আর বুধবার দেশে করোনা সংক্রমণের শিকার হয়েছিলেন ৬,৩৮৭। আর বৃহস্পতিবার সংখ্যা পৌঁছে গেল ৬,৫৬৬ জনে।

গত ২৪ ঘণ্টায় ভারতে করোনা সংক্রমণে মৃত্যু হয়েছে ১৯৪ জনের। ফলে দেশে মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৪,৫৩১। স্বাস্থ্যমন্ত্রীক জানিয়েছে দেশে এখনও পর্যন্ত করোনা মুক্ত হয়েছেন ৬৭,৬৯২ জন। ফলে দেশে বর্তমানে সক্রিয় আক্রান্তের সংখ্যা ৮৬,১১০। 

বাংলাদেশে করোনা হাসপাতালে ভয়াবহ আগুন, সংক্রমণ বৃদ্ধির মধ্যেই ছুটি না বাড়ানোর সিদ্ধান্ত সরকারের

মহামারীর চিকিৎসা করতে গিয়ে মিলছে না সময়, হাসপাতালেই বিয়ে সারলেন চিকিৎসক ও নার্স

বিশ্বে আক্রান্তের সংখ্যা ৫৬ লক্ষ ছাড়াল, লকডাউন শিথিল করলেই আছড়াবে দ্বিতীয় ঝড়, সতর্ক করছে 'হু'

এখনো পর্যন্ত ভারতে করোনা সংক্রমণে এগিয়ে রয়েছে মহারাষ্ট্রই। রাজ্যটিতে এখনও পর্যন্ত কোভিড ১৯ রোগে আক্রান্ত হয়েছেন ৫৬,৯৪৮। মহারাষ্ট্রে করোনা প্রাণ কেড়েছে ১,৮৯৭ জনের। গত ২৪ ঘণ্টায় কেবল মুম্বইতেই করোনা সংক্রমণের শিকার হয়েছে ১,০৪৪ জন। ফলে দেশের বাণিজ্য রাজধানীতে বর্তমানে আক্রান্তের সংখ্যা ৩৩,৮৩৫। গত ২৪ ঘণ্টায় মুম্বইতে করোনা প্রাণ কেড়েছ ৩২ জনের। এদিকে এশিয়ার বৃহত্তম বস্তি ধারাবিতে গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে সংক্রমণের শিকার হয়েছেন ১৮ জন। ফলে ধারাবিতে বর্তমানে আক্রান্তের সংখ্যা পৌঁছেছে ১,৬৩৯-এ। করোনায় মৃত্যু হয়েছে ৬১ জনের।

সংক্রমণের সংখ্যায় দেশে মহারাষ্ট্রের পরেই রয়েছে যথাক্রমে তামিলনাড়ু, গুজরাত এবং দিল্লি। এর মধ্যেই আশার খবর শুনিয়েছে স্বাস্থ্যমন্ত্রক। দেশে সুস্থার হার বেড়ে ৪২.৪৫ শতাংশ হয়েছে বলে বুধবার দাবি করেছেন স্বাস্থ্য মন্ত্রকের এক আধিকারিক। এদিকে পঞ্জাবে সুস্থতার হার ৮৯.৬৬ শতাংশ বলে দাবি করেছে সেই রাজ্যের স্বাস্থ্য দফতর।