যোগী আদিত্যনাথ এর সমালোচনা করে হাজতে যেতে হলো দিল্লির সাংবাদিককে। লক্ষ্ণৌ পুলিশের সাইবার সেল থেকে দিল্লির স্বাধীন সাংবাদিক প্রশান্ত জগদীশ কনৌরিয়াকে শনিবার গ্রেফতার করা হয় তাঁর নিজের বাড়ি থেকে। 

অভিযোগ প্রশান্ত নিজের ফেসবুকে এবং টুইটারে যোগী আদিত্যনাথের বিরুদ্ধে গত ৬ জুন আপত্তিকর পোস্ট করেছেন। লক্ষ্ণৌ অঞ্চলের হজরতগঞ্জ থানায় তাঁর বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেন সাব-ইন্সপেক্টর অশোক গুপ্ত।

ইন্সপেক্টর গুপ্ত তাঁর এফআইআর-এ দাবি করেন, প্রশান্ত নিজের দেয়ালে যোগীকে অপমান করে পোস্ট করেছেন।  এই পোস্টের দরুণ তাঁর ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ণ হয়েছে। ভারতীয় দণ্ডবিধির ৪৯৯ নং ধারায় প্রশান্তর বিরুদ্ধে মানহানির অভিযোগ আনা হয়। 

ঠিক কী শেয়ার করেছিলেন প্রশান্ত? গত ৬ জুন প্রশান্ত নিজের ফেসবুক ওয়ালে হেমা সাক্সেনা নামক জনৈক মহিলার সঙ্গে এক সাংবাদিকের কথোপকথনের একটি ভিডিও প্রকাশ করেন। এই ভিডিওতে হেমা দাবি করেন, যোগীর সঙ্গে তাঁর ভিডিও কনফারেন্সিং এ কথা হয়। তিনি বলেন, যোগী আদিত্যনাথের সঙ্গেই তিনি তাঁর গোটা জীবন কাটাতে চান। ভিডিওটি পোস্ট করার সময় নিজের দেওয়ালে প্রশান্ত লেখেন 'ইশক ছুপতা নেহি ছুপানে সে'।

আইআইএমসির প্রাক্তনী প্রশান্ত বেশ কয়েকটি গণমাধ্যমকে খবর সরবরাহ করতেন। প্রশান্তর স্ত্রী জিগিসা অরোরা এক সর্বভারতীয় গণমাধ্যমকে জানান, এদিন দুপুর সাড়ে বারোটা নাগাদ লক্ষ্ণৌ পুলিশের বেশ কয়েকজন লোক তাঁর বাড়িতে এসে প্রশান্তির খোঁজ করে এবং জানায় যোগী আদিত্যনাথের বিরুদ্ধে অপমানজনক পোস্ট করার জন্য তাঁরা তাকে গ্রেফতার করতে চায়। প্রশান্ত সেই সময় বাড়িতেই ছিলেন।  সর্বশেষ পাওয়া খবর অনুযায়ী প্রশান্তর জিজ্ঞাসাবাদ চলছে।