করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ক্রমেই বেড়ে চলেছে। সারা বিশ্ব জুড়ে ছড়িয়ে পড়া মারণরোগের প্রকোপ ঠেকাতে তৎপর প্রতিটা দেশ। বিভিন্ন জায়গায় বিভিন্ন কৌশলে সচেতনতা অবলম্বণ করার কথা বোঝানো হচ্ছে সকলকে। সাবধান করা হচ্ছে জনসাধারণকে। সোশ্যাল মিডিয়া থেকে শুরু করে বিভিন্ন মাধ্যমে চলছে মানুষকে সতর্ক করার কাজ। এমনই পরিস্থিতিতে ভারতের বুকে থাবা বসিয়েছে করোনা। 

আরও পড়ুনঃ এনপিআর এর জন্য কোনও দলিলের প্রয়োজন নেই, রাজ্যসভায় বললেন অমিত শাহ

আরও পড়ুনঃ আদর্শ আর রাজনৈতিক ভবিষ্যতের সংঘাতেই বিজেপির হাত ধরেছেন, সিন্ধিয়া প্রসঙ্গে মন্তব্য রাহুলের

ইতিমধ্যেই আক্রান্তের সংখ্যা ছাড়িয়েছে ৭৩। ফলে বিপদ এড়াতে কড়া পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে বিভিন্ন রাজ্যের সরকারের পক্ষ থেকে। ইতিমধ্যেই জম্মু কাশ্মীর ও কেরলে সিনেমাহল বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। এবার সেই তালিকাতে নাম লেখাল দিল্লি। তবে কেবল সিনেমাহলই নয়, সঙ্গে বন্ধ রাখা হবে স্কুল-কলেজও। বৃহস্পতিবার রাতের মধ্যেই মিলবে নোটিস, যেখানে উল্লেখ থাকবে সিনেমাহল বন্ধের কথা, পাশাপাশি স্কুল-কলেজের ছুটির ঘোষণা। 

 

 

বৃহস্পতিবার সন্ধের সময় দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল এমনটাই ঘোষণা করেন। এদিন তিনি জানান, জনসংযোগ যথা সম্ভব কম করার জন্যই এমন সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। চলতি মাসের ৩১ তারিখ পর্যন্ত বন্ধ রাখা হবে। তিনি জানান, সব রকমের পরিস্থিতির মোকাবিলার জন্য এই সরকার তৈরি। যে সকল স্কুলে পরীক্ষা চলছে কেবল সেগুলোই খোলা রাখা হবে। বাকি স্কুল বন্ধ থাকবে এখন। পাশাপাশি মুখ্যমন্ত্রী এদিন আরও জানান, যে প্রতিটি সরকারি ও বেসরকারি দফতরকে প্রতিদিন জীবাণু মুক্ত করতে হবে।