কোভিশিল্ড ভ্যাক্সিনের দুটি ডোজের মধ্যে ৬-৮ সপ্তাহ ব্যবধান বাড়াতে নির্দেশ দিল কেন্দ্র। সমস্ত রাজ্য ও কেন্দ্র শাসিত অঞ্চলগুলিকেই একই নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। বিশেষজ্ঞ প্যানেলের সুপারিশ অনুযায়ী এই নির্দেশ দেওয়া হয়েছে বলেও সূত্রে খবর। 

বর্তমানে গোটা ভারতেও কোভিশিল্ডের দ্বিতীয় ডোজটি ২৮ দিনের ব্যবধানে দেওয়া হয়েছে। এই ব্যবধানের পরিবর্তন করা হয়েছে। নুতন সুপারিশে বলা হয়েছে ২৮ দিনের পরিবর্তে কোভিশিল্ডের দ্বিতীয় ডোজটি ৬-৮ সপ্তাহের ব্যবধানে দিতে হবে। সূত্রের খবর বেশ কয়েকটি বৈজ্ঞানিক প্রমানের পরিপ্রেক্ষিতেই জাতীয় টেকনিক্যাল অ্যাডভাইসারি গ্রুপ টিকা প্রতিরোধ সংস্থা, ও ন্যাশানাল এক্সপার্ট গ্রুপ বৈঠেক বসে  এই সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছে। ভ্যাকসিন অ্যাডমিনিস্টেশন কোভিড ১৯ এর ২০তম সভায় এই সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়েছে।

'আমাদের পরিবার নেই তাই আমরা দুর্নীতিগ্রস্ত নই', কেন এই কথা বললেন এক ভোট প্রার্ 

বাংলাসহ ৫ রাজ্যে বন্ধ বাইক ব়্যালি, নিষেধাজ্ঞা জারি করল নির্বাচন কমিশন ...

স্বাস্থ্য মন্ত্রকের কর্মকর্তারা স্পষ্ট করে দিয়েছেন যে, দুটি ডোজের এই ব্যতীক্রম শুধুমাত্র কোভিশিল্ডের ক্ষেত্রেই প্রযোজ্য। কোভ্যাক্সিনের ক্ষেত্রে নয়।সোমবার  একটি চিঠি লিখে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য সচির রাজেশ ভূষণ রাজ্য ও কেন্দ্রীয় শাসিত অঞ্চলগুলির প্রধান সচিবদের বিষয়টি সম্পর্কে অবগত করেছেন। তিনি বলেছেন নীতি আয়োগ ও এনইজিটবি এই সুপারিশ গ্রহণ করেছে। তারপরই রাজ্য ও কেন্দ্রীয় শাসিত অঞ্চলগুলিকে বিষয়টি নিশ্চিহ্ন করতে পরামর্শ দেওয়া হচ্ছে। একই সঙ্গে বলা হয়েছে কোভিশিল্ডের প্রথম ডোজের পর ৪-৮ সপ্তাহের ব্যবধানেই যেন টিকার দ্বিতীয় ডোজটি দেওয়া হয়। সূত্রের খবর বৈজ্ঞানিক পরীক্ষা প্রমাণ দিয়েছে যে কোভিশিল্ডের দ্বিতীয় ডোজটি ৬-৮ সপ্তাহের ব্য়বধানে দেওয়া যেতে পারে। কিন্তু কোনও মতেই ব্যবধান ৮ সপ্তাহের  বেশি করা যাবে না। কোভিশিল্ডের টিকার ব্যবধান যে ৬-৮ সপ্তাহ বাড়ান হয়েছে সেটি প্রচারের জন্যও রাজ্য ও কেন্দ্রীয় শাসিত অঞ্চলগুলিকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।