কৃষি আইন নিয়ে সংসদের পাশাপাশি উত্তাপ চড়ছে সংসদের বাইরেও। বাজেট অধিবেশনের একটা বড় অংশ জুড়ে আলোচনা হচ্ছে কৃষক আন্দোলন ও কৃষি আইন নিয়ে। শুক্রবার কেন্দ্রীয় মন্ত্রী অনুরাগ ঠাকুর সোশ্যাল মিডিয়ায় একটি ভিডিও ক্লিপ শেয়ার করেছেন। যেখানে তিনি দেখিয়েছেন কংগ্রেস সংসদে স্বীকার করে নিয়ে নতুন কৃষি বিলে মান্ডি সিস্টেম শেষ হওয়ার কথা বলা হয়নি। কিন্তু তারপরেও কংগ্রেস কৃষকদের বিভ্রান্ত করার জন্য ষড়যন্ত্র চালিয়ে যাচ্ছে বলেও অভিযোগ করেন। 

অনুরাগ ঠাকুরের শেয়ার করা ভিডিওটিতে কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধী ও বক্তব্য রয়েছে। যেখানে তিনি অভিযোগ করছেন নতুন আইনে কৃষি আইনের মাধ্যমে শেষ করে দেওয়া হবে মান্ডি প্রথা। কিন্তু কংগ্রেসের আরেক সাংসদ দীপেন্দ্র হুডা আলোচনায় জানাচ্ছেন নতুন কৃষি আইনে কোথাও বলা নেই যে মান্ডি প্রথা শেষ হয়ে যাবে। কংগ্রেস দ্বিচারিকা করছে বলেও অভিযোগ করেন অনুরাগ ঠাকুর। 

অন্যদিনে এদিন শ্রীগঙ্গানগরে একটি  কৃষক মহাপঞ্চায়েতে যোগ দিয়েছিলেন তিনি। অভিযোগ করেন নতুন কৃষি আইন লাগু হলে ৪০ শতাংশ মানুষের ব্যবসা ৪০ লক্ষ কোটি টাকা ব্যবসায়ী বিক্রেতা কৃষক শ্রমিকদের ভবিষ্যত দুজন মানুষের হাতে চলে যাবে। দিল্লির উপকণ্ঠে চলা কৃষক আন্দোলন প্রসঙ্গে বলতে গিয়ে তিনি বলেন এটি আর কৃষক আন্দোলন নেই। এটি এখন ভারতের  আন্দোলন হয়ে গেছে। দেশের কৃষকরাই আলো দেখাচ্ছেন বলেও জানিয়েছেন তিনি। 

অন্যদিকে রাকেশ টিকাইত জানিয়েছেন তখনই তাঁরা ঘরে ফিরবেন যখন সরকার নতুন কৃষি আইন প্রত্যাহার করে নেবে। সরকার তাঁদের মঞ্চ আর পঞ্চ একই রকম থাকবে। সিংহু সিমান্ত থেকে তারা সরবেন না বলেও স্পষ্ট বার্তা দিয়েছেন রাকেশ টিকাইত। সরকার এখন বা ১০ দিন পরে বা এক বছর পরে- যখন তাদের সঙ্গে কথা বলবে তখনই তারা কথা বলতে প্রস্তুত বলেও জানিয়েছেন তিনি।