আর্থিকভাবে রীতিমত পিছিয়ে পড়া রাজ্য ওড়িশা। কিন্তু সরকারি প্রচেষ্টা আর সদিচ্ছাকে সবলকরেই মারাত্মক ছোঁয়াচে মহামারীর বিরুদ্ধে লড়াই চালাচ্ছেন ওড়িশার মুখ্যমন্ত্রী নবীন পট্টনায়ক। অন্য প্রদেশের থেকে রাজ্যের শ্রমিকদের ফিরিয়ে আনার পাশাপাশি  সংক্রমণ রুখতেও একাধিক পদক্ষেপ করেছে রাজ্য সরকার। বর্তমানে প্রতিবেশী এই রাজ্যে আক্রান্তের সংখ্যা ১৭ হাজার ৪৩৭ জন। মৃতের সংখ্যা ৯১ এর মধ্যেই বেঁধে রাখতে সক্ষম হয়েছে স্থানীয় প্রশাসন। 

এই পরিস্থিতিতে দাঁড়িয়ে আরও একটি বড় সিদ্ধান্ত ঘোষণা করল রাজ্য সরকার। রাজ্যের করোনা যোদ্ধাদের ইনসেন্টিভ  অর্থাৎ উৎসহ মূলক ভাতা দেওয়ার কথা ঘোষণা করেছে। প্রশাসনের তরফে একটি বিজ্ঞপ্তি জারি করে জানান হয়েছে, কোভিড হাসপাতাল বা সরকারি হাসপাতালে কর্মরত চিকিৎসক, প্যারামেডিক্স ও চতুর্থ শ্রেণির কর্মীদের ইনসেন্টিভ দেওয়ার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়েছে। উৎসহ ভাতা হিসেবে চিকিৎসকরা দৈনিক ১০০ হাজার টাকা পাবেন। প্যারামেডিক্সদের জন্য দৈনিক ৫০০ টাকা বরাদ্দ করা হয়েছে। আর চতুর্থ শ্রেণির কর্মীরা পাবেন ২০০ টাকা।

 

করোনাভাইরাসের সংক্রমণের প্রথম দিনেই চিকিৎসক, নার্স ও স্বাস্থ্য কর্মীসহ জরুরি পরিষেবার সঙ্গে যুক্ত ব্যক্তিদের করোনা যোদ্ধা হিসেবে চিহ্নিত করেছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। কিন্তু তারপর দেখাগেছে গত তিন মাসে একাধিক ঝড় বয়ে গেছে করোনা যোদ্ধাদের ওপর। সাধারণ মানুষ করোনা যোদ্ধাদের স্বাগত জানিয়ে থালা বাজালেও একাধিক জায়গায় আক্রান্ত হতে হয়েছে চিকিৎসক আর নার্স। অনেক প্রতিকূলতার মধ্যেও পড়তে হয়েছে তাঁদের। বেশ কয়েকটি রাজ্যে নিয়মিত বেতন পাচ্ছেন না বলেও আন্দোলনে সামিল হতে হয়েছিল করোনা যোদ্ধাদের। এই পরিস্থিতিতে দাঁড়িয়ে একদম অন্য পথেই হাঁটলেন নবীন পট্টনায়ক।

কোভ্যাক্সিনের প্রথম পর্যায়ের পরীক্ষার ফলপ্রকাশ হবে ২-৩ মাস পরে, জেনেনিন হিউম্যান ট্রায়ালের পদ্ধতি 

পাইলটের বিরুদ্ধে অক্সিজেন নিয়েই যুদ্ধ ঘোষণা গেহলটের, কংগ্রেস কি শচীনের হাত ছেড়ে দেবে ...

শচীন পাইলট প্রধানমন্ত্রী হতে চাইছেন বলে তোপ কংগ্রেস, আদালতের এক্তিয়ার নেই বললেন সিংভি