নতুন মোটর ভেহিকেলস আইন ২০১৯ লাগু হওয়ার পর থেকেই দেশের বিভিন্ন প্রান্তে একের পর এক চড়া মূল্যের জরিমানা ধার্য করার খবর এসেছে। এবার সেই মোটা জরিমানাকে কেন্দ্র করেই মর্মান্তিক এক ঘটনা ঘটে গেল। ফিনাইল খেয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করলেন এক অটোচালক। গুজরাতের আহমেদাবাদের ঘটনা।


নতুন মোটর ভেহিকেলস আইন ২০১৯ লাগু হওয়ার পর থেকেই দেশের বিভিন্ন প্রান্তে একের পর এক চড়া মূল্যের জরিমানা ধার্য করার খবর এসেছে। এবার সেই মোটা জরিমানাকে কেন্দ্র করেই মর্মান্তিক এক ঘটনা ঘটে গেল। ফিনাইল খেয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করলেন এক অটোচালক। গুজরাতের আহমেদাবাদের ঘটনা।

ওই অটো চালকের নাম রাজু সোলাঙ্কি। তিনি বিকম পাশ করেও কোনও চাকরি পাননি। এদিকে আর্থিক অবস্থাও ভালো নয়। একরকম বাধ্য হয়েই অটো চালান। কিন্তু, সম্প্রতি রাস্তায় বেরিয়ে আইন ভাঙার জন্য তাঁর ১৮০০০টাকা জরিমানা হয়। তিনি তা মেটাতে পারেননি। এরপরই পুলিশের পক্ষ থেকে তাঁর রোজগারের একমাত্র মাধ্যম অটোরিক্সাটি বাজেয়াপ্ত করা হয়।

এরপর গত শুক্রবার রাতে তিনি ফিনাইল খেয়ে আত্মহত্যা করার চেষ্টা করেন। পরিবারের লোকজন তাঁকে অচৈতন্য অবস্থায় পেয়ে তাঁকে হাসপাতালে ভর্তি করেন। ডাক্তাররা তাঁর পেট থেকে বিষাক্ত তরল সবচটাই প্রায় বের করে ফেলেছেন।

মোটর ভেহিকেলস আইনে জরিমানার পরিমান বাড়ানো উচিত কি না তাই নিয়ে গত প্রায় একমাস ধরে বিতর্ক চলছে। অনেকেই জরিমানা বাড়ানোর পক্ষে। তাঁদের যুক্তি একমাত্র মোটা জরিমানার ভয়েই ভারতের মানুষ ট্রাফিক আইন নিয়ে সচেতন হতে পারেন। অপর দিকে রাজু সোলাঙ্কির মতো ঘটনাগুলি এই আইনের কর্কশ দিকটিও তুলে ধরছে।