সংবাদের শিরোনামে চলে এল পুনের একটি কাফে। না, ভালো খাবারের জন্য  দেশের সংবাদমাধ্যমের শিরোনামে আসেনি। পুনের  ওই কাফের মহিলা শৌচালয়ে সন্ধান পাওয়া গিয়েছে  লুকানো ক্যামেরা। আর খবর প্রকাশিত হওয়ার পর থেকেই  এলাকায় চাঞ্চল্য দেখা দিয়েছে।  জানা গিয়েছে এক জন মহিলা শৌচালয়টি ব্যবহার করার সময় লুকোনো ওই ক্যামেরা দেখতে পান। 


রেস্তোরাঁটার নাম কাফে বিহেভ।   পুনের হিনজেওয়াদি এলাকায় এটি অবস্থিত।  ওই মহিলা শৌচালয়ের যেখানে ক্যামেরা পাওয়া গিয়েছে, তার ছবি নিজের মোবাইলে তুলে স্যোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করে দেন। সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করার প্রায় মুহূর্তের মধ্যে ভাইরাল হয়ে যায়। ছবি প্রকাশের পাশাপাশি ওই মহিলা সোশ্যাল মিডিয়ায় লিখেছিলেন, 'আমরা কয়েকজন পুনের কাফে বিহেভে গিয়েছিলাম। সেখানে মহিলা শৌচালয়ের ভিতর আমি একটি ক্যামেরা দেখতে পাই। এমনভাবে ক্যামেরাটা রাখা ছিল যাতে কেউ দেখতে না পায়। ভাগ্যক্রমে আমার চোখে পড়ে যায়। তৎক্ষণাৎ আমি ম্যানেজমেন্টকে জানাই। তাঁরা আমাকে দশ মিনিট বাইরে অপেক্ষা করতে বলে। তার মধ্যে ওরা ক্যামেরাটা বাইরে বের করে আনবেন। কিন্তু কেন ক্যামেরা পাওয়া গেল, সেই বিষয়ে কোনও সদুত্তর  ক্যাফেটি থেকে জানানো হয়নি।' 


তিনি আরও জানান,  'মহিলা শৌচালয়ে কেন ক্যামেরা পাওয়া গেল, সেই বিষয়ে কোনও মন্তব্য করতে রাজি হয়নি কর্তৃপক্ষ। এমনকী  এই বিষয়ে তদন্তেরও কোনও আশ্বাস দেওয়া হয়নি। আমরা কাফের মধ্যেই অশান্তি শুরু করি।  তখন কর্তৃপক্ষ চুপ করার জন্য আমাদের ঘুষ দেওয়ারও চেষ্টা করে।' এই খবর ভাইরাল হয়ে যায়। সোশ্যাল মিডিয়ায় কাফে বিহেভের নিন্দায় মশগুল হয়ে পড়েন নেটিজেনরা।  টুইটারে এর প্রতিক্রিয়া দেখিয়েছে  পুনে পুলিশ। ঘটনার তদন্তের আশ্বাস পুনে পুলিশের তরফে দেওয়া হয়েছে বলে জানা গিয়েছে।