দেশের করোনা পরিস্থিতি নিয়ে প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিংয়ের উদ্বেগে কটাক্ষ কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী হর্ষ বর্ধনের। রবিবারই প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে চিঠি দেন মনমোহন সিং। পাঁচটি উপদেশ সামনে রেখে লেখা হয় এই চিঠি। তারই প্রেক্ষিতে সোমবার উত্তর দিলেন হর্ষ বর্ধন। 

আরও পড়ুুন- করোনা যোদ্ধাদের জন্য ৫০ লক্ষ টাকার বীমা, PMGKP প্রকল্পটি ২৪ এপ্রিল পর্যন্ত বাড়াল কেন্দ্রীয় সরকার

এদিন তিনি বলেন কংগ্রেস যদি আপনার পরামর্শ সঠিক সময়ে নিত, তবে ইতিহাস হয়ত অন্যরকম হত। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে দেওয়া আপনার পরামর্শের মতো কংগ্রেসকে দেওয়া আপনার পরামর্শও স্বীকৃতি পেলে, দেশের উপকার হত। এদিন হর্ষ বর্ধন বলেছেন কংগ্রেস টিকাকরণের গুরুত্ব বোঝে না। তাই মনমোহনের পরামর্শ সেই দলে মূল্য পায় না। 

 

কংগ্রেসের নবীন সদস্যরা যদি মনমোহন সিংয়ের পরামর্শের গুরুত্ব বুঝত, তবে কংগ্রেসের ভবিষ্যতও বদলে যেত। এমনই মত কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রীর। হর্ষ বর্ধনের মতে কংগ্রেস যদি দেশের করোনা পরিস্থিতি বুঝত, তবে এত সমালোচনা করে আরও জটিলতা তৈরি করত না। দেশের মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা তুলে ধরে কেন্দ্রের মোদী সরকারকে আক্রমণ করত না। বরং কত মানুষ প্রতিদিন টিকা পাচ্ছেন, সেই তথ্য নেওয়ার চেষ্টা করত। 

 আরও পড়ুন- ওষুধ না পেলে স্টক বাজেয়াপ্ত করা হবে',রেমডেসিভির প্রস্তুতকারীদের হুশিয়ারী মহারাষ্ট্র সরকারের

হর্ষ বর্ধন এদিন জানান, দুর্ভাগ্যজনক ভাবে কংগ্রেস দেশের বিজ্ঞানীদের প্রতি কখনও কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেনি। যাঁরা দিন রাত এক করে টিকা তৈরি করে দেশের মানুষের প্রাণ বাঁচিয়েছেন, তাঁদের প্রতি কখনও সম্মানজনক বক্তব্য রাখতে দেখা যায়নি কংগ্রেসের কোনও নেতাকে। কিন্তু তবু কেন্দ্রের মোদী সরকার করোনার বিরুদ্ধে লড়ে যাচ্ছে। মনমোহন সিংয়ের পরামর্শকে মাথায় রেখে কাজ করতে কোথাও সমস্যা হবে না কেন্দ্রের বলে দাবি কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রীর। 

উল্লেখ্য, গত ২৪ ঘন্টায় গোটা দেশে করোনায় মৃত্যু হয়েছে এক হাজার ৬১৯ জনের। আক্রান্তের সংখ্যা ২লক্ষ ৭৩ হাজার ৮১০জন।  এই পরিস্থিতিতে কেন্দ্রের মোদী সরকারকে চিঠি দেন মনমোহন সিং। তাঁর পরামর্শ ছিল টিকাকরণের ওপর জোর দিতে হবে। ৪৫ বছরের নীচে ব্যক্তিদের টিকা দেওয়া শুরু করা, আরও বেশি করে টিকা উৎপাদনের ব্যবস্থা করার মত একাধিক পরামর্শ দেন প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী।