কয়েকদিন আগে শাহিনবাগের সিএএ বিরোধী আন্দোলনস্থলে ঠান্ডায় মৃত্যু হয়েছিল এক চার মাস বয়সী শিশুর। কোলের সন্তানকে দাফন করে ফের প্রতিবাদে সামিল হয়েছিলেন তার মা। সোমবার এই ঘটনা নিয়ে তীব্র উষ্মা প্রকাশ করল সুপ্রিম কোর্ট। সোমবার এই ঘটনা নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করে সুপ্রিম কোর্ট প্রশ্ন করে ৪ মাসের শিশুটি কি সেখানে প্রতিবাদ করতে গিয়েছিল? মায়েরা কীভাবে এই ঘটনা-কে সমর্থন করছেন তাই নিয়েও বিস্ময় প্রকাশ করে আদালত।

এই বিষয়ে সুপ্রিম কোর্ট স্বতপ্রণোদিতভাবে বস্তক্ষেপ করেছে। শুনানি-তে এদিন প্রধান বিচারপতি এসএ বোবদের নেতৃত্বাধীন বেঞ্চ সাফ জানিয়েছে, বিক্ষোভে শিশুদের সামিল করা বন্ধ করতে হবে।

এদিন, এই মামলায় শাহিনবাগের আন্দোলনকারীদের পক্ষে শীর্ষ আদালতে দাবি করা হয়, গ্রেটা থানবার্গ-ও প্রথম প্রতিবাদ করার সময়ে শিশুই ছিলেন। শাহিনবাগের শিশুদের স্কুলে পাকিস্তানি বলা হচ্ছে বলেও তাঁরা উদ্বেগ প্রকাশ করেন।

প্রধান বিচারপতি অবশ্য সেইসব যুক্তিকে আমল দেননি। শীর্ষ আদালত সাফ জানিয়ে দেয়, এই ক্ষেত্রে স্রেফ চার মাস বয়সী শিশুটির মৃত্যুর বিষয়েই আলোচনা হবে। আদালত মাতৃত্ব, সামাজিক শান্তিকে সম্মান করে জানিয়ে তিনি আরও বলেন শিশুদের পাকিস্তানি বলাটা এই মামলায় সম্পূর্ণ অপ্রাসঙ্গিক যুক্তি। অপরাধবোধ সৃষ্টির জন্যই এই যুক্তি দেওয়া হচ্ছে। পাল্টা প্রশ্ন করেন, ওই চার মাস বয়সী শিশুটি কি শাহিনবাগে প্রতিবাদ করতে গিয়েছিল?

৪ মাস বয়সী শিশুটি ঠান্ডায় মারা যাওয়ার পর প্রধান বিচারপতিকে চিঠি লিখে এই বিষয়টি জানায় ১২ বছরের এক জাতীয় সাহসী পুরষ্কার বিজয়ী। শাহীনবাগে সিএএবিরোধী প্রতিবাদস্থলটিতে তাঁবু খাটানো রয়েছে। তবে ঠান্ডা তাতে বিশেষ আটকায় না। তার মধ্যেই ওই শিশুটিকে নিয়ে গিয়েছিলেন তার মা। সেই রাতেই তার মৃত্যু হয়।