মঙ্গলবার সন্ধে থেকে প্রায় ১২ ঘণ্টা ধরে হায়দরাবাদ এবং সেকেন্দ্রাবাদে মুষলধারে বৃষ্টিপাতের খবর পাওয়া গিয়েছে। যার জেরে কার্যত ব্যহত হয়েছে সাধারণ জনজীবন। ভারতের আবহাওয়া অধিদফতরের তরফে প্রদত্ত ডেটা অনুসারে, একাধিক এলাকায় বৃষ্টিপাত হয়েছে ৭.৫ সেন্টিমিটার থেকে ১৩.২ সেন্টিমিটার পর্যন্ত। 

এর মধ্যে সবচেয়ে বেশি বৃষ্টিপাত হয়েছে সেকেন্দ্রাবাদের ক্যান্টনমেন্ট অঞ্চলের ত্রিমূলঘেরি অঞ্চলে। সেখানে বৃষ্টিপাতের পরিমাণ সর্বাধিক, ১৩.২ সেন্টিমিটার। একটি সর্বভারতীয় সংবাদ মাধ্যমকে দেওয়া সাক্ষাতকারে আবহাওয়া দফতরের তরফে জানানো হয়েছে, গত ১১১ বছরে এখনে বৃষ্টি হয়েছে রেকর্ড পরিমাণ।  প্রসঙ্গত এর আগে ১৯৯৮ সালে হায়দরাবাদে রেকর্ড পরিমাণে বৃষ্টিপাত হয়েছিল, সেবার বৃষ্টির পরিমাণ ছিল ১৫.৩১ সেন্টিমিটার। হাওয়া অফিসের তরফে এও জানানো হয়েছে যে, সাধারণত সেপ্টেম্বর মাসে বৃষ্টিপাত কম হয় কারণ এই সময়ে  বর্ষা বিদায় নেওয়ার পালা। কিন্তু এই মাসেই এত বেসি পরিমাণে বৃষ্টিপাত হওয়াটাই আশ্বর্যজনক। 

 

আরও পড়ুন- ১ ঘন্টায় ১৫০ মিমি, জলবায়ু পরিবর্তনের ভয়াবহ প্রভাব, আতঙ্ক ছড়ালো পুনেতে, দেখুন ভিডিও

আরও পড়ুন- দুবাই বিমানবন্দরে দুটি আম চুরি করে বিপাকে ভারতীয়, জরিমানার পাশাপাশি দেশে ফেরানোর নির্দেশ আদালতের

ভারী থেকে অতি ভারী বৃষ্টিপাতের ফলে হায়দরাবাদের একাধিক রাস্তা , কলোনি, অপেক্ষাকৃত নীচু এলাকা কার্যত জলমগ্ন ছিল। মাধাপুরের আইটি হাব, বানজারা হিল, জুবিলি হিলস, বানজারা হিলস এলাকায় বৃষ্টির জেরে রাস্তাঘাটে চূড়ান্ত হয়রানির শিকার হন সাধারণ মানুষ। বুধবার সকাল থেকে পরিস্থিতি অনেকটাই নিয়ন্ত্রণে এসেছে বলে জানা গিয়েছে। তবে তেলেঙ্গানার অনেক জায়গায় মাঝারি থেকে ভারি বৃষ্টিপাত হবে বলে জানা গিয়েছে।