মহারাষ্ট্রের করোনা পরিস্থিতি ক্রমেই আয়ত্বের বাইরে চলে যাচ্ছে। ইতিমধ্যে আক্রান্তের সংখ্যা ৯৪ হাজার ছাড়িয়ে গিয়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় মারাঠা রাজ্যে সংক্রমণের শিকার হয়েছেন ৩,২৫৪ জন। এখনও পর্যন্ত মারণ ভাইরাস মহারাষ্ট্রে প্রাণ কেড়েছে ৩,৪৮৮ জনের। তারমধ্যে গত ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু হয়েছে ১৪৯ জনের। পরিস্থিতি যেদিকে এগোচ্ছে তাতে ফের একবার কড়া লকডাউনের কথাই ভাবছে মহারাষ্ট্র সরকার। সেই ইজ্ঞিত স্বয়ং দিয়ে রাখলেন মুখ্যমন্ত্রী উদ্ধব ঠাকরে।

 

দেশে শুরু হয়ে গিয়েছে আনলক ১। এবার ধীরে ধীরে সাধারণ মানুষকে স্বাভাবিক জীবনে ফেরাতে চাইছে সরকার। আর তাই একাধিক ক্ষেত্রে মিলেছে ছাড়। আর এই সুযোগ নিয়েই সাধারণ মানুষ মানছেন না কোনও নিয়ম। লকডাউন শিথিল হতেই পথে বেড়েছে ভিড়। কিন্তু এভাবে তলতে থাকলে মহারাষ্ট্র জুড়ে পরিস্থিতি আরও খারাপের দিকেই এগোবে বলে আশঙ্কা করছেন মুখ্যমন্ত্রী উদ্ধব ঠাকরে, সেইকারণে ফের কড়া লকডাউনের কথা বলে সাধারণ মানুষকে সতর্ক করতে চাইছেন  মহারাষ্ট্রের শিবসেনা-এনসিপি-কংগ্রেসের জোট সরকারের মুখ্যমন্ত্রী।

শোচনীয় অবস্থা দেশের রাজধানীর, খুলেও তাই ফের বন্ধ হচ্ছে জামা মসজিদের দরজা

প্রথম শেষ না হতেই দেশে আসছে করোনার দ্বিতীয় ওয়েভ, জেনে নিন সবচেয়ে ঝুঁকিতে রয়েছে কোন ১৫টি দেশ

জন্মদিনেই করোনা কেড়ে নিল প্রাণ, চলে গেলেন তামিলনাড়ুর ডিএমকে বিধায়ক জে আনবাঝাগন

অর্থনীতিকে চাঙ্গা করতে লকডাউন শিথিল করতে হয়েছে, কিন্তু এর অর্থ এই নয় যে লকডাউন উঠে গিয়েছে। এই ভাষাতেই উদ্ধব ঠাকরে  কড়া ভাবে বক্তব্য রাখেন। এসবের মধ্যেও অবশ্য জরুরি পরিষেবার সঙ্গে যুক্ত ব্যক্তিদের জন্য লোাকাল ট্রেন পরিষেবা চালু করতে চাইছেন উদ্ধব। 

আনলক ওয়ানে আন্ত:জেলা পরিষেবার উপর বিধিনিষেধ তুলে নেওয়া হয়েছে।  ফলে বর্তমানে  মুম্বই, থানে, পালঘর, রায়গঢ়ের মধ্যে যাতায়াতের ক্ষেত্রে কোনও নিষেধাজ্ঞা নেই। এমনকী প্রয়োজন পড়ছে না  ই-পাসেরও। এরমধঅযেই করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা ক্রমশ বাড়ছে মহারাষ্ট্রে। দেশের মধ্যে মহারাষ্ট্রের পরিস্থিতিই সবচেয়ে  ভয়ঙ্কর। সমীক্ষা বলছে প্রতিদিন যেহারে এই রাজ্যে আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছে, তা ছাড়িয়ে গিয়েছে ব্রিটেনের আক্রান্তের হারকেরও। আক্রান্তের সংখ্যার নিরিখে চিনকে ছাপিয়ে গেছে মহারাষ্ট্র। এমনকী, উহান যেখানে করোনার মূল উৎস্যস্থল, সেই শহরকেও আক্রান্তের সংখ্যার বিচারে ছাপিয়ে গেছে মুম্বই। ইতিমধ্যে দেশের বাণিজ্য রাজধানীতে আক্রান্তের সংখ্যা ৫২ হাজার ছাড়িয়ে গিয়েছে। মুম্বইতে করোনা প্রাণ কেড়েছে ১,৮৫৭ জনের।