বিশ্বে কোনও দেশের পাসপার্ট কত শক্তিশালী তাই নিয়ে জোর প্রতিযোগিতা চলে। আর এই প্রতিযোগিতায় একটা দেশ, অন্য দেশের একেবারে ঘাড়ের কাছে নিঃশ্বাস নেয়। কোনও দেশের পাসপোর্ট কতটা শক্তিশালী তা নির্ভর করে,  সে দেশের পাসপোর্টে বিনা ভিসায় কতগুলো দেশে যাওয়া যায়। এই প্রতিযোগিতায় ভারত বেশ পিছিয়ে আছে। শক্তিশালী পাসপোর্টের ভিত্তিতে করা তালিকায় ভারত ৮২ নম্বর স্থানে রয়েছে। তবে এই স্থান নিয়ে মন খারাপের কোনো জায়গা নেই ভারতের। ঘুরতে যেতে চাইলে এই পাসপোর্টের সাহায্যেই বিনা ভিসাতে ৫৯টা দেশে যাওয়া সম্ভব। তার মধ্যে একদিকে যেমন প্রতিবেশী দেশ নেপাল, ভুটান রয়েছে, তেমনি অন্য দিকে পর্যটন প্রধান দেশ মালদ্বীপ, মরিশাস, ইন্দোনেশিয়া, ফিজি। 

পর্যটন প্রিয় ভারতীয়রা একটু লম্বা ছুটি পেলেই এদিক ওদিক বেরিয়ে পড়ে পর্যটনের উদ্দেশে। এমনিতে ঘোরার জন্য ভারতে জায়গার অভাব নেই। তবে পকেট একটু গরম থাকলেই ভারতীয়রা একটু বিদেশ মুখী হতে চায়। তবে ইউরোপের দেশগুলো বা আমেরিকায় ঘোরার মতো পকেটে জোর না থাকলে, ভারতীয়রা অনায়াসে বেড়িয়ে পড়েন মালদ্বীপ, মরিশাস, ইন্দোনেশিয়া, ফিজির মতো দেশগুলোতে। এখানে ভিসার জন্য যেমন কোনও ঝামেলা নেই, তেমনি অল্প ছুটিতে মন ভরে আনন্দ করা যেতে পারে। 

হেনলি পাসপোর্ট ইনডেক্স  অনুযায়ী, শক্তিশালী পাসপোর্টের তালিকায় রয়েছে এশিয়ার দুটি দেশ সিঙ্গাপুর ও জাপান। কোনও ব্যক্তির কাছে সিঙ্গাপুর বা জাপানের পাসপোর্ট থাকলে বিনা ভিসায়  তিনি পৃথিবীর ১৯০ টি দেশে যেতে পারবেন। এই দিক থেকে এশিয়া কয়েকটি ইউরোপের দেশগুলোর সঙ্গে রীতিমতো পাল্লা দিচ্ছে। দ্বিতীয় স্থানে যেমন রয়েছে দক্ষিণ কোরিয়া, ফিনল্যান্ড ও জার্মানি। এই তিনটে দেশের পাসপোর্টে ১৮৮টি দেশ বিনা ভিসায় ঘোরা সম্ভব হবে।  তৃতীয় স্থানে রয়েছে ইউরোপের তিনটে দেশ ডেনমার্ক, লাক্সেমবার্গ ও ইতালির। এই তিনটি দেশের পাসপোর্ট থাকলে ১৮৭টি বিনা ভিসায় ঘোরা সম্ভব হয়েছে। ফ্রান্স, স্পেন ও সুইডেনের পাসপোর্ট থাকলে ১৮৬টি দেশে যাওয়া যাবে বিনা ভিসায়। ইউরোপের এই তিনটি দেশে হেনলি পাসপোর্ট ইনডেক্স অনুযায়ী চতুর্থ স্থানে রয়েছে।