করোনার একের পর এক নতুন স্ট্রেন আবিষ্কার হচ্ছে। সেই নিয়ে নতুন করে সংক্রমণের ভয় তৈরি হলেও, ভারতে তারমধ্যেই ধীরে ধীরে সংক্রমণ কমছে। শুক্রবার সকালে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রক জানিয়েছে গত ২৪ ঘন্টায় ভারতে নতুন করোনা সংক্রমণ ধরা পড়েছে মাত্র ২৩,০৬৭টি। যা বৃহস্পতিবারের তুলনায় ৬ শতাংশ কম। ফলে এদিন ভারতের মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যাটা পৌঁছেছে ১,০১,৪৬,৮৪৫-এ। বস্তুত গত ১২ দিন ধরেই, ভারতে দৈনিক নতুন সংক্রমণের সংখ্যা ৩০,০০০ এর নিচে রয়েছে।

বৃহস্পতিবার ভারতে নতুন যতগুলি সংক্রমণ ধরা পড়েছে, তারমধ্যে রাজ্যগতভাবে এগিয়ে রয়েছে কেরল। দক্ষিণের এই রাজ্যে গত ২৪ ঘন্টায় ৫,১৭৭টি নতুন সংক্রমণের খবর পাওয়া গিয়েছে। এই রাজ্যে মোট আক্রান্তের সংখ্যাটা ২.২৬ লক্ষ ছাড়িয়ে গিয়েছে। অন্যদিকে প্রথম থেকেই সবথেকে খারাপ অবস্থায় থাকা মহারাষ্ট্রে গত ২৪ ঘন্টায় নতুন কোভিড কেস পাওয়া গিয়েছে ৩,৫৮০ টি। এই রাজ্যে মোট আক্রান্তের সংখ্যা এখন ১৯,০৯,৯৯১ জন।

সার্বিকভাবে সংক্রমণ কমতে থাকলেও এখন প্রশাসনের বিশেষ মাথা ব্যথা হয়ে দাঁড়িয়েছে যুক্তরাজ্যের কোভিড -১৯-এর নতুন স্ট্রেন। বৃহস্পতিবার প্রায় ১,২০৬ জন যাত্রী ইউরোপ এবং মধ্য-প্রাচ্য থেকে মুম্বই-এ এসেছেন। তাঁদের মধ্য়ে ৭৮৮ জনকে বিচ্ছিন্ন করা হয়েছে। উত্তরপ্রদেশের গাজিয়াবাদে, যুক্তরাজ্য এবং ইউরোপ থেকে ফিরে আসা মনুষদের চিকিত্সার জন্য কোভিড-১৯ কন্ট্রোল রুমের ভিতরেই একটি আলাদা উইং স্থাপন করা হয়েছে। জানা গিয়েছে, গোয়া ও মহারাষ্ট্রে যুক্তরাজ্য থেকে ফিরে আসা অন্তত ১২ জন যাত্রী করোনা ইতিবাচক সনাক্ত হয়েছেন। মেঘালয়ে আবার যুক্তরাজ্য-ফেরতদের প্রবেশই নিষিদ্ধ করা হয়েছে।