জম্মু ও কাশ্মীর ভারতের অবিচ্ছেদ্য অংশ। কিন্তু সোশ্যাল মিডিয়ায় ট্যুইটারে জম্মু ও কাশ্মীর আর লাদাখকে চিনের অংশ হিসেবে দেখানো হচ্ছে। তাই নিয়ে কেন্দ্রীয় সরকার সামাজিক মাধ্যমটিকে একটি কড়া চিঠি লিখেছে বলে সূত্রের খবর। ট্যুইটার ইনকের সিইও জ্যাক ডার্সিকে লেখা চিঠিতে বলা হচ্ছে ভারতের মানচিত্রে ভুল উপস্থাপনা অস্বাকীর করে সংস্থাটি ভারতীয় নাগরিকদের সংবেদনশীলতার প্রতি অসম্মান করেছে। অবিলম্বে তা শুধরে নেওয়ার প্রস্তাবও দেওয়া হয়েছে। 


আগে লদাখের সবথেকে বড় শহর লে আর জম্মু ও কাশ্মীরের একাংশকে সোশ্যাল মিডিয়ায় চিনের অংশ হিসেবে দেখান হয়েছে। আর তাতে রীতিমত অবমাননা করা হয়েছে ভারতের সার্বভৌমত্ব আর আখণ্ডতাকে। ট্যুটার যেভাবে ভারতের মানচিত্রের ছবি সামনে আনছে তা বেআইনি বলেও দাবি করা হয়েছে বলে সূত্রের খবর। তথ্য প্রযুক্তি সচিব অজয় সাওয়নি বলেছেন এজাতীয় কার্যকলাপ সোশ্যাল মিডিয়াটির নিরপেক্ষতা আর কার্যকারিতা নিয়েও প্রশ্ন তুলতে শুরু করেছে। 

পদ্ম শিবিরে করোনার থাবা, শাহনওয়াজের সঙ্গে এক মঞ্চে থেকেই কি সংক্রমিত সুশীল মোদী .

পোখরানে নাগ মিসাইলের সফল পরীক্ষা, চিনকে জবাব দিতে দেশীয় প্রযুক্তিতে ভরসা প্রতিরক্ষা মন্ত্রকের ...


রবিবারেই সামনে আসে ট্যুইটারে ভারতের জম্মু ও কাশ্মীর আর লে-কে সোশ্যাল মিডিয়ায় চিনের অংশ হিসেবে দেখান হচ্ছে। সমর বিশেষজ্ঞ নীতিক গোখলে হল অব ফেমের সামনে থেকে ট্যুইটারে একটি লাইভ অনুষ্ঠান করছিলেন। সেই সময় তিনি জায়গাটির লোকেশান দিয়েছিলেন। তখনই দেখা যায় এটি ভারতের নয় চিনের অংশ হিসেবে দেখান হয়েছে। একটি সূত্র বলছে ট্যুইটার এই বিষয়টি স্বীকার করে নিয়েছে। পাশাপাশি জানিয়েছে প্রযুক্তিগত ত্রুটির কারণে এজাতীয় সমস্যা তৈরি হয়েছে। জিও ট্যাগ ইস্যুতে দ্রুত তদন্ত করে পুরো বিষয়টি খতিয়ে দেখা হবে। পাশাপাশি জানান হয়েছে সমস্ত বিষয়টি দ্রুত সমাধান করতে বদ্ধপরিকর সংস্থা। ভারতের পাঠান চিঠির জবাবে ট্যুইটারের মুখপাত্র জানিয়েছেন তাদের সংস্থা ভারতের সঙ্গে কাজ করতে বদ্ধ পরিকর। প্রতিটি দেশের সংবেদনশীলতাতে তারা সম্মান করে বলেও জানিয়েছেন।