নির্বাচনের আগেই বিজেপি শিবিরে করোনাভাইরাসের থাবা। এবার করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হলেন বিহারের উপমুখ্যমন্ত্রী তথা বিজেপি নেতা সুশীল কুমার মোদী। বর্তমানে পাটনার এইমস হাসপাতালে তাঁর চিকিৎসা চলছে। সোশ্যাল মিডিয়ায় বার্তা দিয়ে সুশীল কুমার মোদী জানিয়েছেন, করোনাভাইরাসের পরীক্ষা করিয়েছিলেন তিনি। তাতেই জানা যায় তিনি আক্রান্ত হয়েছেন। তাঁর শারীরিক অবস্থা পুরোপুরি স্থিতিশীল গয়েছে। সমান্য জ্বর ছিল তাঁর। কিন্তু গত দুদিন কোনও জ্বর নেই। উপযুক্ত চিকিৎসার জন্য তিনি পাটনার এইমস হাসপাতালে ভর্তি রয়েছে। সিটিস্ক্যানে দেখা গেছে তাঁর ফুসফুসের অবস্থা ঠিক রয়েছে। কয়েক দিন পরেই নির্বাচনী প্রচারে অংশ নেবেন বলেও অনুগামীদের আশ্বস্থ করেছেন। 

ভোটে জিতলে ফ্রি-তে করোনা টিকা, তেজস্বীর পরিকল্পনা ভেস্তে দিলেন নির্মলা .

দুর্গাপুজো উদ্বোধনে নাম না করে মমতাকে চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিলেন মোদী, মহিলাদের পাশে থাকার বার্তা .
আগামী সপ্তাহে বিহারে প্রথম দফার নির্বাচন। তার আগেই প্রথম সারির নেতা অসুস্থ হয়ে যাওয়ায় কিছুটা হলেও অস্বস্তি বাড়িয়ে বিজেপির। তবে শুধু সুশীল মোদী নয়। কোয়ারেন্টাইনে রয়েছে বিজেপির আরও বেশ কয়েকজন নেতা। মঙ্গল পাণ্ডে, রাজীব প্রতাপ রেড্ডিও স্বেচ্ছা নির্বাচনে রয়েছে। কারণ বিহারে ভোট প্রচারে এসেছিলেন বিজেপি নেতা শাহনওয়াজ হুসেন। প্রচারের মাঝেই তিনি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে পড়েন। আর সেকথা নিজেই সোশ্যাল মিডিয়ায় জানিয়েছেন প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী। পাশাপাশি তিনি জানিয়েছিলেন, তিনি এমন কয়েকজনের সংস্পর্শে এসেছিলেন যাঁরা কোভিড পজেটিভ ছিলেন। তাই নিজের নমুনা পরীক্ষা করান তিনি। তারপরই জানান যায় তিনিও আক্রান্ত মারাত্ম ছোঁয়াচে ভাইরাসে।  

শাহনওয়াজ হুসেন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার পরই নিজেকে গৃহবন্দি করে রাখানে সুশীল কুমার মোদী। কারণ ভোট প্রচারে তাঁরা একই মঞ্চে উপস্থিত ছিলেন। তারপরই তিনি নমুনা পরীক্ষা করান। তাতেই জানা যায় তিনিও মহামারির কবলে পড়েছেন। বাকিদেও কেন্দ্রীয় সরকারের স্বাস্থ্য বিধি মেনে  করোনা পরীক্ষার করার আবেদন জানিয়েছেন দুই বিজেপি নেতা।