ঘুরছিল তিনজন প্রবীন বিজেপি বিধায়কের নাম। কিন্তু শেষ পর্যন্ত কেজি বোপিয়া ও সুরেশ কুমারকে পিছনে ফেলে কর্নাটক বিধানসৌধের ছয়বারের বিধায়ক বিশ্বেশ্বর হেগরে কাগেরিই কর্নাটক বিধানসৌধের নতুন স্পিকার নির্বাচিত হলেন। মঙ্গলবারই প্রার্থী হিসেবে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছিলেন। কংগ্রেস ও জেডিএস দল কোনও প্রার্থীই দেয়নি। ফলে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতাতেই জিতলেন কাগেরি।

বর্তমানে উত্তর কানারার সিরসি বিধানসভা এলাকা থেকে নির্বাচিত কাগেরি টানা ছয়বার নির্বাচিত হয়েছেন। কর্নাটক বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ার সময় থেকেই গেরুয়া রাজনীতির প্রতি ঝোঁক তৈরি হয়েছিল। সেইসময়ের এবিভিপির দাপুটে নেতা ছিলেন তিনি। ১৯৯৪ সালে প্রথমবার কর্নাটক বিধানসৌধে পা রেখেছিলেন আঙ্কোলা কেন্দ্র থেকে নির্বাচিত হয়ে। পর পর তিনবার সেখান থেকেই নির্বাচিত হল। কেন্দ্রটি পুনর্গঠিত হলে তিনি সিরসি থেকে প্রার্থী হন।

আরও পড়ুন - দুর্নীতির মূলে দেশের নির্বাচন, ক্ষোভ প্রকাশ করে ইস্তফা অধ্যক্ষ রমেশ কুমারের

আরও পড়ুন - ধ্বনি ভোটে জিতলেন ইয়েদুরাপ্পা, আপাতত ছ' মাসের জন্য নিশিন্ত কর্ণাটকবাসী

আরও পড়ুন - বাতিল বিদ্রোহী ১৭ বিধায়কের পদ, আজ আস্থাভোটে ইয়েদুরাপ্পার কঠিন পরীক্ষা

সোমবার ইয়েদুরাপ্পা সরকার বিধানসৌধে সরকারে সংখ্য়াগরিষ্ঠতার প্রমাণ দেওয়ার পরই কেআর রমেশ কুমার স্পিকার পদ ছেড়ে দিয়েছিলেন। কর্নাটকে জেডিএস-কংগ্রেস জোটের ১৭ জন বিধায়ক ইস্তফা দেওয়ার পর থেকেই রাজ্যে রাজনৈতিক সঙ্কট জারি ছিল। আস্থা ভোট চলাকালীন রমেশ কুমারের বিরুদ্ধে পক্ষপাতিত্বের অভিযোগ ওঠে। প্রথমে ইয়েদুরাপ্পা সরকার ও এদিন নতুন স্পিকার নির্বাচনের পর সেই সঙ্কটাবস্থা আপাতত কাটল বলেই মনে করছে রাজনৈতিক মহল।