করোনা যুদ্ধে দেশের সফল স্বাস্থ্যমন্ত্রীদের মধ্যে অন্যতম নাম ছিল কেকে শৈলজা। করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রুখতে তাঁর একাধিক পদক্ষেপ শুধু দেশে নয় বিদেশেও প্রশংসিত হয়েছিল। কিন্তু তারপরেও এই মহিলা রাজনীতিবিদ স্থান পেলেন না কেরলের নতুন মন্ত্রিসভায়। কেরলে দ্বিতীয় বারের জন্য ক্ষমতার দখল নিয়েছেন সিপিএম নেতা পিনারাই বিজয়ন। কিন্তু তাঁর নতুন ক্যাবিনেট মন্ত্রীদের তালিকায় নাম নেই কেকে শৈলজার। 

সাইক্লোন Tauktae-র সঙ্গে লড়াই INS Kolkata-র, আরব সাগরে নৌবাহিনীর সাহসী অভিযান ..

কেকে শৈলজা, দীর্ঘ দিন শিক্ষকতা করার সূত্রে স্থানীয় বাসিন্দাদের কাছে 'টিচার আম্মা' নামেই পরিচিত ছিলেন। রাজ্যে করোনা সংক্রমণ রুখতে রাতদিন এক করে পরিশ্রম করেছেন। শুধু করোনাভাইরাসই নয়, তার আগে নিপাভাইরাইসও যথেষ্ট দক্ষতার সঙ্গে মোকাবিলা করেছেন।  ২০২০ সালে ব্রিটেনের একটি ম্যাগাজিনে তিনি বছরের সেরা চিন্তাবিদ নির্বাচিত হয়েছিলেন। সদ্যো শেষ হওয়া বিধানসভা নির্বাচনে কেরলের শাসকদলের অন্যতম অ্যাজেন্ডা ছিল করোনা মোকাবিলা। যার ভিতপুজো হয়েছিল কেকে শৈলজার হাত ধরেই। বিধানসভা নির্বাচনের ভোট যন্ত্রেও ধরা পড়েছে তাঁর সাফল্যের ছবি। তিনি প্রায় ৬২ শতাংশ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছিলেন। কিন্তু তারপরেও পিনারাই বিজয়নের মন্ত্রিসভায় তাঁর নাম নেই। স্বাস্থ্য মন্ত্রীর পজ থেকে পদত্যাগ করেছেন কেরলের প্রিয় টিচার আম্মা।

জেলা শাসকরাই Covid যুদ্ধে ফিল্ড কমান্ডার, বললেন নরেন্দ্র মোদী ...

কেরল সিপিএম-র এক নেতা তথা বিধায়ক শামশির জানিয়েছেন, কেরলের ঐতিহাসিক জল পেয়ে দ্বিতীয় বারের জন্য ক্ষমতা দখল করেছে বাম নেতৃত্বাধীন এলডিএফ। তাই মন্ত্রিসভা গঠনের ক্ষেত্রে রীতিমত সাবধানী পিনারাই বিয়জন। মন্ত্রিসভায় পুরনো মুখের তুলনায় প্রাধান্য দেওয়া হচ্ছে নতুনদের। বলা যেতে পারে একটি সম্পূর্ণ নতুন মন্ত্রিসভা গঠন করা হচ্ছে। পুরনো মুখ বলতে থাকবেন একমাত্র পিনারাই বিজয়ন। তাঁর মন্ত্রিসভার বাকি সব সদস্যই হবেন নতুন। সেই জন্যই শৈলজা পদত্যাগ করেছেন।  

ভয়ঙ্কর ঘূর্ণী ঝড় Tauktae-র দাপটে লন্ডভন্ড গুজরাট-মহারাষ্ট্র, দেখুন ছবিতে ...

শৈলজার পদত্যাগে দুঃখ প্রকাশ করেছেন কেরলের বামেদের প্রধান প্রতিপক্ষ কংগ্রেসের নেতার শশী থারুর।সোশ্যাল মিডিয়ায় বার্তা দিয়ে তিনি বলেছেন, এটা খুবই হতাশাজনক যে শৈলজা কেরলের নতুন মন্ত্রিসভায় ঠাঁই পেলেন না। শৈলজাকে মন্ত্রিসভায় ঠাঁই না দেওয়ায় বামেদের তীব্র সমালোচনা শুরু হয়েছে। অনেকেই করোনা মোকিবালয় তাঁর সাফল্যের কথা তুলে ধরে রীতিমত তুলেধনা শুরু করেছেন কেরল সিপিএম-এর। তবে এখনও পর্যন্ত বিষয়টি নিয়ে কোনও মন্তব্য করেননি শৈলজা। ভোটে জয়ের পরই তিনি  বলেছেন দলের সব সিদ্ধান্ত তিনি মেনে নেবেন।