দিদির নগ্ন ছবি মিললে তবেই বিয়ে। প্রেমিকের এমন শর্ত শুনতে গিয়ে শ্রীঘরে ঠাঁই হল প্রেমিকার। ঘটনাটি মুম্বইয়ের আগরিপাদায়। যদিও বেপাত্তা অভিযুক্ত প্রেমিক। স্বাভাবিকভাবেই এমন ঘটনা চাঞ্চল্য ফেলে দিয়েছে। 

মুম্বইয়ের আগরিপাদার পুলিশ  জানিয়েছে, গ্রেফতার হওয়া প্রেমিকার সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক ছিল স্থানীয় এক যুবকের। কিন্তু এই সম্পর্ক নিয়ে দুই বাড়ির মধ্যেই আপত্তি ছিল। এর সত্ত্বেও প্রেমিককে বিয়ে করতে অনড় ছিল ওই প্রেমিকা। নবরাত্রিতে ডান্ডিয়া খেলার সময় পরিস্থিতি আরও চরম আকার নেয়। ডান্ডিয়া খেলার সময় অভিযুক্ত প্রেমিকার দিদির হাতের লাঠি গিয়ে লাগে প্রেমিকের বোনের হাতে। এতে প্রেমিকের বোন আহত হয়। 

এই নিয়েও দুই পরিবারের মধ্যে বচসা শুরু হয়। গোটা ঘটনায় প্রেমিকও ক্ষোভ প্রকাশ করে। প্রেমিকাকে সে নাকি জানিয়েও দেয় প্রতিশোধ না নেওয়া পর্যন্ত সে শান্ত হবে না। এমনকী, প্রেমিকার দিদি ইচ্ছাকৃতভাবেই তার বোনের হাতে আঘাত করেছে বলেও প্রেমিক নাকি দাবি করেছিল। প্রেমিকার 
অনেক অনুনয়-বিনয়ে প্রেমিক শান্ত হলেও সে শর্ত দেয়। জানিয়ে দেয়, প্রেমিকা যদি তার দিদির নগ্ন ছবি এনে দিতে পারে তাহলেই সে বিয়ে করবে। 

প্রেমিকের মন রাখতে এরপরই নাকি সে স্নানের সময় দিদির নগ্ন ছবি মোবাইলের ক্য়ামেরাবন্দি করে। এরপর সেই ছবি সে নাকি প্রেমিকের মোবাইলে পাঠিয়ে দেয়। কিন্তু, প্রেমিক সেই ছবি পেয়ে প্রেমিকার পরিবারের অন্য সদস্যদের মোবাইলে তা পাঠিয়ে দেয়। এতে পরিস্থিতি আরও জটিল আকার নেয়। 

যার ছবি ঘিরে এত কাণ্ড সেই দিদি জানিয়েছেন, তাঁর নগ্ন ছবি পরিবারের সকল সদস্যকে পাঠিয়েছিল বোনের প্রেমিক। এমনকী তাঁর শ্বশুরকেও এই ছবি পাঠানো হয় বলে অভিযোগ। এরপরই মুম্বইয়ের আগরিপাদা থানায়  অভিযোগ দায়ের করা হয়। তদন্ত শুরু করে পুলিশ। তদন্তে জানা যায়, স্নানের সময়ের এই ছবি যে তুলেছিল সে আর কেউ নয় তাঁর বোন। এরপরই পুলিশ অভিযুক্ত তরুণীকে গ্রেফতার করে। পুলিশি জেরায় সমস্ত ঘটনা নাকি উগড়েও দেয় ওই তরুণী। আপাত্ত মূল অভিযুক্ত তরুণীর প্রেমিকার খোঁজে তল্লাশি চালাচ্ছে পুলিশ।