এখনও পর্যন্ত ৩৮ বার চাঁদের মাটিতে 'সফট ল্যান্ডিং'-এর চেষ্টা হয়েছে। তার মধ্যে সাফল্য এসেছে মাত্র ২০ বার। ফলে ইতিহাস তৈরির হাতছানি যতই থাক না কেন, কাজটা যে কতটা কঠিন, এই একটা তথ্যেই তা পরিষ্কার। ভারতের চন্দ্রযান ২ সফলভাবে চাঁদের মাটি স্পর্শ করতে পারে কি না, সেদিকেই এখন তাই গোটা বিশ্বের নজর। 

ইসরোর তরফে জানানো হয়েছে,ভারতীয় সময় শুক্রবার রাত ১.৩০ থেকে ২.৩০-এর মধ্যে চাঁদের মাটিতে সফট ল্যান্ডিং করবে চন্দ্রযান। ভারতীয় মহাকাশ গবেষণা সংস্থার দেওয়া তথ্য অনুযায়ী, চাঁদের মাটি ছোঁয়ার এক মিনিট আগে চাঁদের ছবি তুলে পাঠাবে ল্যান্ডার বিক্রম। এর চার ঘণ্টা পরে ল্যান্ডার বিক্রম থেকে বেরিয়ে আসবে রোভার প্রজ্ঞান। এর পর প্রথমেই ল্যান্ডার বিক্রমের একটি ছবি তুলবে রোভার প্রজ্ঞান। 

আরও পড়ুন- চন্দ্রযান ২ LIVE UPDATE, ইতিহাসের দোরগোড়ায় ভারত, অপেক্ষা আর কয়েক ঘন্টার

আরও পড়ুন- চন্দ্রাভিযানে অবদান চন্দ্রকান্তেরও, ঐতিহাসিক মুহূর্ত দেখতে টিভি সারিয়ে রাখলেন বাবা

চাঁদের থেকে ৩৫ কিলোমিটার উচ্চতা থেকে আস্তে আস্তে অবতরণ শুরু করবে বিক্রম। চাঁদের মাটি ছোঁয়ার আগে নব্বই ডিগ্রি কোণে নিজেকে নিয়ে যাবে সে। রাত ১.৩৮ মিনিটে চন্দ্রযান ২ চাঁদের মাটির দিকে ধীরে ধীরে এগিয়ে যেতে শুরু করবে। সেই সময় চাঁদের থেকে ৩৫ কিলোমিটার উচ্চতায় অবস্থান করার কথা চন্দ্রযানের।

চাঁদ থেকে ৭.৪ কিলোমিটার উচ্চতায় থাকার সময় ব্রেক কষে থামবে বিক্রম। এই সময় উল্টো অভিমুখে বিক্রমে ইঞ্জিন চালু করা হবে। 

অবতরণ শুরু করার দু' মিনিটের মধ্যে রাত ১.৫০ মিনিটে ল্যান্ডার বিক্রম চাঁদের মাটির ম্যাপিং শুরু করবে। রাত ১.৫২ মিনিটে সবথেকে কম দূরত্ব থেকে চাঁদের মাটির ছবি তুলে ইসরোয় পাঠাবে বিক্রম।

ছবি তুলে পাঠানোর ঠিক এক মিনিট পর ১.৫৩ মিনিটে চাঁদের মাটিতে নামবে বিক্রম। এর দু' ঘণ্টা পরে ভোর ৩.৫৩ মিনিটে যে ঢাল বেয়ে বিক্রম থেকে নেমে আসবে প্রজ্ঞান, সেটি খুলে যাবে। ভোর ৪.২৩ মিনিটে প্রজ্ঞান চালু হবে। ৫.০৩ মিনিটে প্রজ্ঞানের সঙ্গে থাকা সোলার প্যানেলগুলিও প্রস্তুত হয়ে যাবে। ভোর ৫.১৯ মিনিটে ল্যান্ডার বিক্রম থেকে বেরিয়ে আসবে রোভার প্রজ্ঞান। চাঁদের মাটি ছুঁতে দশ মিনিট লাগবে প্রজ্ঞানের।

প্রজ্ঞান আসলে একটি রোবোটিক যান যা পাঁচশো মিটার দূরত্ব অতিক্রম করতে সক্ষম, এর আয়ু চোদ্দ দিন। ভোর ৫.৪৫ মিনিটে বিক্রমের ছবি তুলে পৃথিবীতে পাঠাবে প্রজ্ঞান।