কেউ এখন আর আপনাদের জমি আর বাড়ির দিকে নজর দিতে পারবে না। রবিবার সম্পত্তি কার্ডের আনুষ্ঠানিক বিতরণ অনুষ্ঠানের সূচনার পর একথা বলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। তিনি আরও জানিয়েছেন গ্রামাঞ্চলে জমির জরিপ আর মানচিত্রের উন্নত প্রযুক্তির সাহায্যে ম্যাপিং করা হয়েছে। তাই কার্ড প্রাপ্তদের জমি বা সম্পত্তির ওপর কোনও বহিরাগত আর নজর দিতে পারবে না। 

এসভিএমএমআইটিভিএ প্রকল্পটি গ্রহণ করার মূল উদ্দেশ্যই ছিল জমি সংক্রান্ত সঠিক ডকুমেন্টেশন তৈরি ও সম্পত্তি নিয়ে বিরোধী মীমাংশা আর জমি হস্তান্তরের সুবিধে বাড়ানো। কেন্দ্রীয় সরকারের দাবি এই প্রকল্পটি গ্রামবাসীদের ব্যাঙ্ক থেকে ঋণ গ্রহণে সহায়তা করবে। তাই জমি সংক্রান্ত এই কার্ড বিলি অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী বলেছেন যথাযথ দলিল থাকবে কোনও ব্যাঙ্ক গ্রাহকদের খালি হাতে ফেরাতে পারবে না। গ্রামীণ মানুষদের স্বনির্ভর করে তোলার পক্ষে এটি একটি গুরুত্বপূর্ণ পদক্ষেপ বলেও দাবি করেছেন প্রধানমন্ত্রী। 


গ্রামীণ এলাকায়া বাড়ি বা জমির অধিকার সংক্রান্ত নতি সেখানের মানুষের হাতে তুলে দেওয়ার জন্যই রবিবার নমকেন্দ্র মোদী এই প্রকল্পের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন। এই দিনই উত্তর প্রদেশ, হরিয়ানা, মধ্যপ্রদেশসহ ছটি রাজ্যের প্রায় এক লক্ষ মানুষকে পাঠান হবে মোবাইল লিঙ্ক। চাইলে উপভোক্তরা মোবাইলফোনের মাধ্যমেই জমি সংক্রান্ত এই কার্ডা ডাউনলোড করতে পারবেন। ২০২৪ সালের মধ্যে এই সুবিধে পৌঁছে দেওয়া হবে দেশের ৬ লক্ষ ৬২ হাজার গ্রামে। এদিনের অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী বলেন কয়েক দশক ধরে দেশের কোটি কোটি গ্রামের মানুষের নিজস্ব কোনও বাড়ি ছিল না। আজ দুকোটি দরিদ্র পরিবার পাকা বাড়ি পেয়েছে। তিনি আরও বলেন কোন  মানুষ যদি সম্পত্তির মালিক হয়ে যায় তাহলে সে সেখানে সম্মানের সঙ্গে বাস করতে পারে।