করোনাভাইরাসের টিকা নিয়ে এখনও পর্যন্ত রাজনীতি করা বন্ধ করতে পারেনি কংগ্রেস। তৃতীয় দফার ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল না হওয়ার আগেই কেন  কোভ্যাক্সিনকে জরুরি ব্যবহারের জন্য অনুমোদন দেওয়া হয় তা নিয়ে আগেই  প্রশ্ন তুলেছিল কংগ্রসের প্রথম সারির নেতৃত্ব। এবার বিহারের কংগ্রস নেতা অজিত শর্মা আরও একধাপ এগিয়ে সারসরি নিশানা করেন কেন্দ্রীয় সরকারকে। তিনি  বলেন দেশবাসীর আস্থা অর্জন করার জন্য করোনাভাইরাসের প্রতিষেধকের প্রথম ইনজেকশন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর নেওয়া উচিৎ। 


বিহারের কংগ্রেস নেতা তথা বিধায়ক অজিত শর্মা প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে সবার আগে করোনাভাইরাসের টিকা গ্রহণের আবেদন জানিয়ে আরও একটি বিতর্ক তৈরি করতে চেয়েছেন। কথা প্রসঙ্গে তিনি রাশিয়ার রাষ্ট্রপতি ভ্লাদিমির পুতিন ও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের নির্বাচিত রাষ্ট্রপতি জো বাইডেনের কথাও  তুলে আনেন। তিনি বলেন জনগণের আস্থা অর্জন করার জন্য তাঁরা প্রথম ভ্যাক্সিন শট নিয়েছিলেন। একই পদাঙ্ক অবলম্বন করা উচিৎ প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর। তিনি বলেন প্রধানমন্ত্রী সবার আগে টিকা গ্রহণ করলে মানুষের ভয়ভীতি দূর হবে। বিহারের কংগ্রেস নেতা আরও বলেন, ভ্যাক্সিন তৈরির কৃতিত্ব পুরোপুরি নেওয়ার চেষ্টা করছে বিজেপি। কিন্তু তা পুরোপুরি সঠিক নয়। কারণ  কংগ্রেস সরকার ক্ষমতায় থাকাকালীন তৈরি হয়েছিল সেরাম ও ভারত বায়োটেক। আর সেই কারণেই ভ্যাক্সিন তৈরির কৃতিত্বও পাওয়া উচিৎ কংগ্রেসেরও। 

কোভিশিল্ড VS কোভ্যাক্সিন, কোনটা শক্তিশালী, রবিবারই ছাড়পত্র পেয়েছে দুটি করোনা-টিকা ...

শুরুতেই 'পিন ড্রপ সাইলেন্স', বিজ্ঞান ভবনে কেন্দ্র-কৃষক সপ্তম পর্যায়ের বৈঠক চলছে ...

অন্যদিকে সোমবার  প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী জনিয়েছেন আর কিছুদিনের মধ্যেই ভারতের বিশ্বের বৃহত্তম টিকাকরণ কর্মসূচি শুরু হবে বলে জানিয়েছেন। একই সঙ্গে তিনি দেশের বিজ্ঞানী ও প্রযুক্তিবিদদের অবদানের ভূয়সী প্রশংসা করেছেন। দেশীয় পদ্ধতি ভ্যাক্সিন তৈরির জন্য তিনি দেশেরই বিজ্ঞানী ও গবেষকদের  সম্পূর্ণ কৃতিত্ব দিয়েছেন।