চতুর্থ পর্বে লকডাউনের নিয়মনীতি ঘোষণা করেছে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক। কিন্তু এই ক্ষেত্রে বেশ কিছু শিথিলতা আনলে রাতের ভারতে প্রত্যেক ব্যক্তির গতিবিধির ওপর নিয়ন্ত্রণ আনতেই এই পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে। নাইট কার্ফু জারি থাকবে সন্ধ্যে ৭টা থেকে সকাল ৭টা পর্যন্ত। নাইট কার্ফু জারি রাখার ক্ষেত্রে স্থানীয় প্রশাসনকে যথাযথ পদক্ষেপ গ্রহণের নির্দেশ দিয়েছে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক। 
এবার এক ঝলকে দেখে নেব নাইট কার্ফুর নিয়ম নীতি-

নাইট কার্ফুর নিয়ম:
সন্ধ্যে ৭টা থেকে সকাল ৭টা পর্যন্ত নাইট কার্ফু জারি থাকবে
স্থানীয় প্রশাসন গোটা এলাকায় ১৪৪ ধারা জারি করবে
লাল, সবুজ ও কমলা সব জোনেই নাইট কার্ফু জারি থাকবে
অত্যান্ত প্রয়োজন ছাড়া ব্যক্তির  গতিবিধি নিয়ন্ত্রণ 

করোনা সংক্রমণ রুখতে আগেও নাইট কার্ফু জারি ছিল। কিন্তু এবার নাইট কার্ফুর ওপর কিছুটা হলেও জোর দেওয়া হয়েছে। অন্যদিকে স্থানীয়ভাবে আর্থনৈতিক কার্যকলাপ চালু রাখতে বেশ কিছু শিথিলতা এনেছে কেন্দ্রীয় সরকার। 

আরও পড়ুনঃ করোনাভাইরাসও চিড় ধরাতে পারেনি হিন্দু-মুসলিমের বন্ধুতে, ভাইরাল দুই পরিযায়ী শ্রমিকের ছবি ...

আরও পড়ুনঃ এক জন আক্রান্ত হওয়ায় কোয়ারেন্টাইনে যেতে হল একাধিক কর্মীকে, রাষ্ট্রপতিভাবনে করোনার হামলা ...

কর্মস্থলেও নূন্যতম নিরাপদ শারীরিক দূরত্ব বজায় রাখার ওপর জোর দেওয়া হয়েছে। সরকারি বেসরকারি সকল কর্মীদের আরোগ্য সেতু অ্যাপ ডাউনলোড করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। তবে সম্ভব থাকলে বাড়িতে বসে কাজের ওপরই জোর দেওয়া হয়েছে। অন্যদিকে কেন্দ্রীয় সরকারের নতুন গাইডলাইনেও স্কুল, কলেজসহ সমস্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। রাজনৈতিক ও ধর্মীয় সমাবেশের ওপরেও নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে। 

নতুন গাইডলাইনে দোকান বাজার খোলার নির্দেশ দেওয়া হলেও নিরাপদ শারীরিক দূরত্ব বাজার রাখার ওপরেই জোর দেওয়া হয়েছে। একটি দোকানে একসঙ্গে ৫ জন ব্যক্তির বেশি জমায়েতের ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে। শপিং মল খোলার ক্ষেত্রে সিদ্ধান্ত নেবে রাজ্য প্রশাসন। তেমনই জানান হয়েছে নতুন গাইড লাইনে। 

লকডাউন ৪.০-র নির্দেশিকায় আন্তঃরাজ্য বাস চলাচলে ছাড় দেওয়া হয়েছে। কিন্তু স্থানীয় প্রশানের নির্দেশেই বাস ও গাড়ি চলাচল করবে বলেও জানান হয়েছে। সোমবার থেকে শুরু হয়ে গেছে লকডাউন ৪.০। এক্ষেত্রে আগামী ৩১ মে পর্যন্ত লকডাউন চলবে বলেও কেন্দ্রীয় সরকারের পক্ষ থেকে জানান হয়েছে।