ধীরে ধীরে এগিয়ে আসছে সংসদের বর্ষাকালীন অধিবেশনের দিন। কিন্তু এখনও করোনাভাইরাসের সংক্রমণের হাত থেকে রেহাই পায়নি দেশ। এই পরিস্তিতিতে দাঁড়িয়ে নিরাপদ শারীরিক দূরত্ব অথবা প্রধানমন্ত্রীর কথা অনুযায়ী দুই গজ দূরত্ব বজায় রেখে কী করে হবে লোকসভা ও রাজ্যসভার অধিবেশন? ইতিমধ্যে তাই নিয়ে শুরু হয়ে গেছে জল্পনা। সূত্রের খবর সোমবার রাজ্যসভার চেয়ারম্যান এম বেঙ্গাইয়া নাইডু ও লোকসভার স্পিকার ওম বিড়লা লোকসভা ও রাজ্যেসভার দায়িত্ব প্রাপ্ত প্রিসাইডিং অফিরাসের সঙ্গে আলোচনা করেন। বর্ষাকালীন অধিবেশন ভার্চুয়াল করা যায় কিনা তা নিয়ে আলোচনা করা হয়েছে। লোকসভায় ৫৪৫ জন সদস্য। আর রাজ্যসভার সদস্য সংখ্যা ২৪৫। দুই কক্ষে মোট ৭৯০ জন সদস্য রয়েছেন। কিন্তু নিরাপদ শারীরিক দূরত্ব বজায় রেখে দুই কক্ষে কিছুতেই সব সদস্যদের বসানোর ব্যবস্থা করা যাবে না বলেও জনান হয়েছে। তাই ভার্চুয়াল বৈঠকের প্রসঙ্গ উত্থাপন হয়েছে বলেই সূত্রের খবর। 

পাশাপাশি আলোচনা হয়েছে লোকসভা ও রাজ্যসভার বৈঠক সেন্ট্রাল হলে স্থানান্তারিত করা যায় কিনা । কারণ আয়তনে সেন্ট্রাল হল যথেষ্ট বড়। গম্বুজটির ব্যসার্ধ প্রায় ৩০ মিটার সব মিলিয়ে ৮০০ জন একসঙ্গে এখানে বসতে পারেন এখানে। তাই নিয়মবিধি মেনে লোকসভার ৫৪৫ জন সাংসদকে বসাতে খুব একটা সমস্যা হবে না বলে মনে করা হচ্ছে। একদিন লোকসভার অধিবেশন ও পরের দিন রাজ্যসভার অধিবেশন যদি করা যায় তাহলে নিরাপদ শারীরিক দূরত্ব বজায় রাখার পাশাপাশি সংসদে আসা প্রতিনিধিদের সংখ্যাও কম থাকবে। যা করোনা সংক্রান্ত স্বাস্থ্য বিধি মেনে চলা অনেকটাই সহজ হবে বলেও মনে করছেন প্রশাসনিক আধিকারিকরা। 

রাজ্যসভার ১৮টি আসনে নির্বাচন হবে ১৯ জুন, ঘোষণা নির্বাচন কমিশনের ..

করোনা গোষ্ঠী সংক্রমণের পর্যায়ে পৌঁছেছে ভারতে, অপরিকল্পিত লকডাউনের খেসারত দিতে হচ্ছে, দাবি বিশেষজ্ঞদে...

ইতিহাসের পুনরাবৃত্তি আমেঠিতে, কোথায় গেলেন স্মৃতি খুঁজে বেড়াচ্ছে স্থানীয়রা...

 

সেন্ট্রাল হবে যদি লোকসভা ও রাজ্যসভার বর্ষাকালীন অধিবেশেনের ব্যবস্থা করা হয় তাহলে তা সংসদীয় ইতিহাসে ইতিহাস তৈরি করবে। কারণ সচারচর সেন্ট্রাল হলে উচ্চ ও নিমম্নকক্ষের যৌথ অধিবেশনই হয়ে থাকে। এই সেন্ট্রাল হলেই সংবিধান প্রনয়ণ করা হয়েছিল। বর্তমানে এটি  গ্রন্থাগার হিসেবে ব্যবহৃত হয়। ১৯৪৬ সাল থেকেই এই জায়গাটি সেন্ট্রাল হল হিসেবে ব্যবহার করা হয়ে থাকে। বহু ইতিহাসের সাক্ষী এই সেন্ট্রাল হল। ৩০ জুন, ২০১৭ মধ্যরাতে এক দেশ এক পণ্য পরিষেবা কর চালু করার জন্য যৌথ অধিবেশন হয়েছিল সেন্ট্রাল হলেই। মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা ও বিল ক্লিন্টনকেও স্বাগত জানান হয়েছিল এই সেন্ট্রাল হলেই। 

সংসদের বর্ষাকালীন অধিবেশন মূলত জুলাই-আগস্ট মাসে হয়ে থাকে। করোনা উদ্বেগের কারণেই গত ২৪ মার্চ বাজের অধিবেশন মুলতবি হয়ে গিয়েছিল। নিয়ম অনুযায়ী ৬ মাসের মধ্যে অন্তত একবার সংসদের অধিবেশন বসাতে হবে। তাই জন্য সরকারের হাতে বর্ষাকালীন অধিবেশনের জন্য আগামী সেপ্টেম্বর মাস পর্যন্ত সময় রয়েছে। পাশাপাশি খতিয়ে দেখা হচ্ছে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে সংসদের অধিবেশন করা যায় কিনা। কিন্তু সেক্ষেত্রেও বেশ কয়েকটি বাধা রয়েছে। কারণ দ্বায়িত্ব প্রাপ্ত আধিকারিকরা নির্দেশিকা জারি করা বিধি নিষেধ আরোপ করতে পারে না। একই সঙ্গে স্থগিতাদেশের জন্য সংসদে একটি প্রস্তাব পেশ করা জরুরি। কিন্তু যেহেতু দুটি হাউসের কর্যক্রম সম্প্রচারিত হয় ভার্চুয়াল বৈঠকে কিছুটা হলেও বাধা রয়েছে। তবে দুটি হাউসেরই বিষয়টি নিয়ে আলোচনা করছেন বলে সূত্রের খবর।