ই়ডি অফিস পর্যন্ত এসেছিলেন। কিন্তু সেখান থেকে কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থার আধিকারিকদের চোখে ধুলো দিয়ে ধাঁ হয়ে গেলেন খোদ মুখ্যমন্ত্রীর ভাগ্নে। এমনই অভিযোগ উঠেছে মধ্যপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী কমল নাথের ভাগ্নে রাহুল পুরীর বিরুদ্ধে। 

সংবাদসংস্থার খবর অনুযায়ী, অগস্টা হেলিকপ্টার দুর্নীতি মামলায় শুক্রবার রাতুল পুরীকে ডেকে পাঠিয়েছিল ইডি। নয়া দিল্লিতে ইডি অফিসে হাজিরও হয়েছিলেন তিনি। কিন্তু সেখানে গিয়েও তদন্তকারীদের প্রশ্নের মুখোমুখি হননি তিনি। অভিযোগ, প্রশ্নোত্তর পর্ব শুরু করার আগে অপেক্ষা করতে বলা হয়েছিল। কিন্তু বাথরুমে যাওয়ার নাম করে সেখান থেকেই রাতুল বেরিয়ে আসেন বলে অভিযোগ। শৌচাগারে যাওয়ার পর থেকে তাঁর আর দেখা পাওয়া যায়নি বলেই অভিযোগ ইডি আধিকারিকদের। 

৩৬০০ কোটি টাকার অগস্টাওয়েস্টল্যান্ড চপার দুর্নীতি মামলার যৌথ তদন্ত করছে ইডি এবং সিবিআই। সেই মামলাতেই বেশ কিছু প্রমাণ হাতে নিয়ে শুক্রবার রাতুল পুরীকে জেরা করার প্রস্তুতি নিয়েছিলেন ইডি গোয়েন্দারা। কিন্তু ইডি অফিসে পৌঁছনোর পরেও গোয়েন্দাদের সামনে হাজির হননি রাতুল। অভিযোগ, বিষয়টি নজরে আসার পরেই মোবাইলে রাতুলের সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করেন ইডি অফিসাররা। কিন্তু মোবাইল সুইচ অফ ছিল। 

রাতুল হিন্দুস্তান পাওয়ার প্রোজেক্টস লিমিটেডের চেয়ারম্যান। অতীতেও এই মামলায় তাঁকে জেরা করেছে ইডি। তিনি নীতা এবং দীপক পুরীর ছেলে। দীপক পুরী অপটিক্যাল স্টোরেজ সংস্থা মোজার বেয়ারের সিএমডি। আর নীতা পুরী মধ্যপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী কমল নাথের বোন। 

ঘটনাচক্রে, শনিবারই দিল্লির একটি আদালত এই মামলায় সোমবার পর্যন্ত রাতুল পুরীকে গ্রেফতার করা যাবে না বলে নির্দেশ দিয়েছে। তাঁর বিরুদ্ধে অগস্টা ওয়েস্টল্যান্ড কাণ্ডে অর্থ তছরুপের অভিযোগ রয়েছে।