কাশ্মীরে জঙ্গি হানার আশঙ্কা ক্রমে বাড়ছে। সেনা সূত্রে খবর পাক অধিকৃত কাশ্মীরে ফিরে এসেছে মাসুদ আজহারের ভাই ইব্রাহিম আজহার। শুধু সে একা নয়, সঙ্গে রয়েছে আরও ১৫ জন প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত জঙ্গির একটি দল। আর এই মধ্যে আটকে পড়া অমরনাথের তীর্থযাত্রীদের ভারতীয় বায়ুসেনার সি-১৭ বিমানে উড়িয়ে নিয়ে যাওয়ার জন্য অনুরোধ করেছে জম্মু-কাশ্মীর রাজ্য প্রশাসন। জম্মু, পাঠানকোট বা দিল্লি - যেখান থেকে তাঁরা নিজেদের বাড়ির পথ ধরতে পারবেন, সেই রকম কোনও জায়গায় তাঁদের নামিয়ে পৌঁছে দেওয়া হবে বলে জানা যাচ্ছে।

জইশ ই মহম্মদ প্রদান মাসুদ আজহারের ভাই ইব্রাহিম আজহার এই মুহূর্তে পাক অধিকৃত কাশ্মীরেই রয়েছে বলে ভারতীয় গোয়েন্দারা খবর পেয়েছেন। পাকিস্তানের খাইবার পাখতুনিয়ার জামরুদে জইশের এক প্রশিক্ষণ শিবিরে তাঁদের ট্রেনিং দেওয়া হয়েছে বলে জানা গিয়েছে। জম্মু কাশ্মীরে অনুপ্রবেশ করে বড় সড় হামলা চালানোই তাদের লক্ষ্য।

এদিকে অমরনাথ যাত্রা আচমকা বন্ধ করে দেওয়ার ফলে দারুণ বিপদে পড়েছেন তীর্থযাত্রীরা। বাড়ি ফিরতে চাইছেন তাঁরা। কিন্তু পরিবহনের যথেষ্ট সংস্থান নেই। সরকারি বাস পরিষেবা চালু না থাকায় অনেকেই আটকে পড়েছেন শ্রীনগরে। বেসরকারি বাসগুলি সুযোগ বুঝে তাদের ভাড়া অনেক বাড়িয়ে দিয়েছে। সেইসঙ্গে বিমান ভাড়াও একলাফে অনেকটা বেড়ে গিয়েছে। এই অবস্থায় অন্তত জম্মু পর্যন্ত প্রয়োজনীয় নিরাপত্তা দিয়ে তাঁদের নামিয়ে নিয়ে যাক সরকার - এমনটাই দাবি জানিয়েছিলেন তীর্থযাত্রীরা।

এরপরই প্রশাসনের তরফ থেকে বায়ুসেনাকে একটি সি-১৭ বিমানে করে তীর্থযাত্রীদের নিরাপদ স্থানে পৌঁছে দেওয়ার অনুরোধ জানানো হয়েছে। দেশের বিভিন্ন এলাকা থেকে এই বিমানগুলিতে করেই আধা সামরি বাহিনীর জওয়ানদের কাশ্মীর উপত্যকায় আনা হচ্ছে। এক-একটি বিমানে একবারে প্রায় ২৩০ জন যাত্রী নিয়ে যাওয়া যায়।