তাঁর আনা ব্যাগের ওজন বেশি। সেই কারণে বারাণসীর লালবাহাদুর শাস্ত্রী আন্তর্জাতিক  বিমানবন্দরে থামতে হল মরিশাসের প্রেসিডেন্টকে। দুদিনের জন্য যোগীরাজ্য উত্তরপ্রদেশে ঘুরতে আসেন মরিশাসের প্রেসিডেন্ট পৃথ্বিরাজ সিং রোপুন। সঙ্গে ছিল ছয় সদস্যের প্রতিনিধি দল। বিশ্বনাথধাম দর্শন করে দিল্লি উড়ে যাওয়ার কথা ছিল প্রেসিডেন্টের। কিন্তু বাদ সাফল তাঁর ব্যাগের অতিরিক্ত ওজন। 

এয়ার ইন্ডিয়ার বিমানে ওঠার আগেই আটকে দেওয়া হয় মরিশাসের প্রেসিডেন্টকে। এয়ার ইন্ডিয়ার তরফে বিদেশি প্রেসিডেন্টকে জানানো হয়,  তাঁর সঙ্গে থাকা অতিরিক্ত মালপত্রের জন্য বাড়তি টাকা মেটালে তবেই তাঁকে দিল্লিগামী বিমানে চড়তে দেওয়া হবে।

আরও পড়ুন: অবশেষে তালেবানদের সঙ্গে স্বাক্ষরিত আমেরিকার ঐতিহাসিক শান্তি চুক্তি, সাক্ষী থাকল ভারতও

ঘটনার কথা বিমানবন্দরের ডিরেক্টর আকাশদীপ মাথুরের কানে যেতেই তিনি তৎক্ষণাত হস্তক্ষেপ করেন। জেলা শাসক কৌশ রাজ শর্মাও এয়ার ইন্ডিয়ার কর্মীদের সঙ্গে এই বিষয়ে কথা বলেন। এয়ার ইন্ডিয়ার কর্মীরা অবশ্য।স্পষ্ট করে দেন তাদের নিজস্ব পদ্ধতি অনুসরণ করতেই হবে। 

 

পরিস্থিতি যাতে হাতের বাইরে চলে না যায় সেজন্য এরপর বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষ কেন্দ্রের অসামরিক বিমান মন্ত্রকের সঙ্গেও যোগাযোগ করেন। পাশাপাশি মরিশাসের প্রেসিডেন্টের থেকে অতিরিক্ত শুল্ক না নেওয়ার জন্য এয়ার ইন্ডিয়ার কর্তৃপক্ষের কাছে অনুরোধ করা হয়। 

আরও পড়ুন: দেবপ্রয়াগে খরস্রোতা নদীতে পা পিছলে গেল প্রধান বিচারপতির, দেখুন সেই ভয়ঙ্কর মুহুর্তের ভিডিও

এই উদ্যোগে কাজ হয়। অতিরিক্ত শুল্ক না দিয়েই মরিশাসের প্রেসিডেন্টকে দিল্লি উড়ে যেতে দেওয়া হয়। এয়ার ইন্ডিয়া ম্যানেজার আতিফ ইরদিশ জানিয়েছেন, যে পরিমাণ ওজনের মালপত্র অতিরিক্ত শুল্ক না দিয়ে বিমানসফরে নিয়ে যাওয়া সম্ভবকর, তার থেকে বেশি জিনিস ছিল মরিশাসের রাষ্ট্রপতিক সঙ্গে, তাই নিয়ম মেনেই তাঁকে আটকে ছিল এয়ার ইন্ডিয়ার কর্মীরা। তবে সরকারি আধিকারিকদের অনুরোধের পর কোনওরকম শুল্ক কা না নিয়েই তাঁকে দিল্লির বিমানে উঠতে দেওয়া হয়।