গত মে মাসে বৃষ্টিপাতে রেকর্ড গড়েছে মে মাস। গরম ছিল অন্যান্য বছরগুলির তুলনায় অনেক কম। আবহাওয়া দফতরের মাসিক প্রতিবেদনে তেমনই দাবি কা হয়েছে।  প্রতিবেদনে বলা হয়েছে ১২১ বছরে সব থেকে বেশি বৃষ্টি হয়েছে ভারতে। ইন্ডিয়ান মেটিরিওলজিক্যাল   ডিপার্টমেন্ট বা IMD জানিয়েছে চলতি বছর  মে মাসে গোটা দেশে ১০৭.৯ মিলিমিটার বৃষ্টি হয়েছে। যা বিগত বছরের তুলনায় ৭৪ শতাংশ বেশি।  মে মাসে দেশে গড় বৃষ্টিপাতের পরিমাণ ৬২ মিলিমিটার। 

১৯০১ সালের এপর বছরই দ্বিতীয় সর্বোচ্চ বৃষ্টিপাত হয়েছে এই দেশে। তেমনই জানিয়েছে হাওয়া অফিসের। মে মাসে সর্বোচ্চ বৃষ্টিপাতের তালিকায় প্রথম ১৯৯০ সাল। সেবছর বৃষ্টি হয়েছিল ১১০,৭ মিলিমিটার। আরব সাগর আর বঙ্গোপসাগরে তৈরি হওয়া ঘূর্ণিঝড়ের কারণেই চলতি বছর মে-তে সবথেকে বেশি বৃষ্টি হয়েছে বলেও জানিয়েছে হাওয়া অফিস। আরব সাগরে তৈরি হওয়া ঘূর্ণিঝড় তাউটে আর ঘূর্ণিঝড় ইয়াসের কারণেই চলতি বছর মে মাসকে প্রবল বৃষ্টি উপহার দিয়েছে। কারই তাইটে স্থলভাগে আছড়ে পড়ার পর গভীর নিম্নচাপে পরিণত হয়ে  মহারাষ্ট্র, গুজরাটসহ উত্তর প্রদেশ, রাজস্থানে প্রবল বৃষ্টিপাত ঘটায়। আর ইয়াসই স্থলভাগে আছড়ে পড়ার পর বাংলা, বিহার, ওড়িশা, ছড়িত্তশগড়ের মত একাধিক রাজ্যে প্রবল বৃষ্টি কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছিল। 
 
আবহাওয়া দফতর জানিয়েছে অন্যান্য বছরগুলির তুলনায় চলতি বছর মে মাসে দেশে গড় গরমের পরিমাণও ছিল অনেকটাই কম। হাওয়া অফিসের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে ১৯১৭ সালের পর এবছরই মে মাসে সবথেকে কম গরম পড়েছিল। এবছর মে মাসে তাপমাত্রার গড় ছিল ৩২.৬৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস, যা ১৯১৭ সালের তুলনায় কম। ১৯৭৭ সালে মে তে গরম ছিল ৩৩.৮৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস। চলতি বছর মে মাসে দেশে কোনও অংশ ভয়াবহ তাপপ্রবাহ দেখা যায়নি বলেও জানিয়েছে আইএমডি। আইএমডি জানিয়েছে, চলতি বছর গ্রীষ্মের তিন মাস উত্তরভারতে পশ্চিমা ঝঞ্ঝার পরিমাণ অন্যান্য বছরগুলির তুলনায় অনেকটাই বেশি ছিল। এই পশ্চিমা ঝঞ্জার কারণেই ঘূর্ণিঝড় তৈরি হয়, যা মধ্য এশিয়া পেরিয়ে  উত্তর ভারতে আঘাত করে।