২০১৯ সালে একটুর জন্য চাঁদে নামা হয়নি। কিন্তু নতুন বছরের শুরুর দিনই ইসরো চন্দ্রযান-৩ ও গগনযান অভিযানের কথা ঘোষণা করেছে। মহাকাশে এই অভাবনীয় সাফল্যের সমান্তরালে এবার প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ভারতের সাফল্য চান আরও এক অজানা ক্ষেত্রে। শুক্রবার ভারতের বিজ্ঞান কংগ্রেসের উদ্বোধন করে প্রধানমন্ত্রী বলেন মহাকাশ গবেষণার ক্ষেত্রে ভারত যে সাফল্য পেয়েছে সেই সাফল্যই পেতে হবে গভীর সমুদ্রের সম্পদের অনুসন্ধান এবং ব্যবহারের ক্ষেত্রে।

বেঙ্গালুরুতে ইন্ডিয়ান সায়েন্স বক্তব্য রাখতে গিয়ে প্রধানমন্ত্রী মোদী বলেন, মহাসাগরগুলির জল, শক্তি, খাদ্য ও খনিজ সম্পদের মানচিত্র তৈরি ও 'দায়িত্বশীল' ব্যবহার করতে হবে। তিনি জানান বিজ্ঞান চর্চার পথ যাতে সহজ হয় তা নিশ্চিত করার কাজ করছে তাঁর সরকার। একই সঙ্গে লাল ফিতের ফাঁস আলগা করতে তথ্য প্রযুক্তি-কে কাজে লাগানো হচ্ছে।

ইনোভেশন ইনডেক্স বা উদ্ভাবনী সূচকে এই বছর ভারত অনেকটা উন্নতি করেছে। এর জন্য ভারতীয় বিজ্ঞানীদের ধন্যবাদ জানান প্রধানমন্ত্রী। এই বিষয়ে নরেন্দ্র মোদী তরুণ বিজ্ঞানীদের এগিয়ে আসার আহ্বান জানিয়েছেন। এর জন্য এক স্লোগানও বেঁধে দিয়েছেন তিনি - 'ইনোভেট, পেটেন্ট, প্রোডিউস অ্যান্ড প্রসপার' অর্থাৎ 'উদ্ভাবন করো, পেটেন্ট নাও, তৈরি করো এবং এবং সমৃদ্ধ হও'। এই চার পদক্ষেপই ভারতকে দ্রুত উন্নয়নের দিকে নিয়ে যাবে বলে জানান তিনি।

একইসঙ্গে তিনি ভারতের বিজ্ঞান, প্রযুক্তি এবং উদ্ভাবনের চিত্রটা পরিবর্তনের ডাক দিয়েছেন। কারণ প্রধানমন্ত্রী মনে করেন বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি ক্ষেত্রে সাফল্যের উপরই ভারতের উন্নয়ন নির্ভর করে আছে ।