এক মর্কান্তিক দুর্ঘটনার সাক্ষী থাকল গোটা মুম্বই। বেলুন নিয়ে খেলতে গিয়ে মৃত্যু হল চার বছরের একটি শিশুর। নিহতের বাড়ি মুম্বইয়ের আন্ধেরিতে। মৃতের পরিবারের সদস্যরা জানিয়েছে, চার বছরের শিশুটি তার বোনের সঙ্গে বেলুন নিয়ে খেলছিল। খেলার ছলে শিশুটি বেলুনগুলি উড়িয়ে দিচ্ছিল। প্রথম বসে বসে খলছিল। তারপর তারপর দুজনেই শুয়ে খেলা শুরু করে। সেইসময়ই ঘটে যায় চরম বিপত্তি। কারণ সেই সময়ই একটি বেলুন ৪ বছরের শিশু দেবরাজের মুখে ঢুকে যায়। দেবরাজ সেটি গিলে নিয়ে শ্বাসনালীতে তা আটকে যায়। 

তারপরই দেবরাজকে বাঁচানোর আপ্রাণ চেষ্টা করে তার পরিবারের সদস্যরা। প্রথমে পরিবারের সদস্যরাই নিজেরাই দেবরাজের গলা থেকে বেলুন বার করতে উদ্যোগ নেয়। কিন্তু তাতে সাফল্য না মেলায় স্থানীয় একটি হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। কিন্তু সেখান থেকে অন্য হাসপাতালে রেফার করা হয়। নানাবতী হাসপাতালে নিয়ে গেলে তাঁকে মৃত বলে ঘোষণা করা হয়। দেবরাজের পরিবারের সদস্যরা জানিয়েছিল তারা নানাবতী হাসপাতালে যাওয়ার সময়ই অচৈতন্য হয়ে গিয়েছিল দেবরাজ। চিকিৎসকদের প্রাথমিক অনুমান শ্বাস বন্ধ হয়ে যাওয়ার কারণেই মৃত্যু হয় চার বছরের ছেলেটির। 

এবার আর আসল নয়, পরীক্ষাগারে তৈরি কৃত্রিম মুরগির মাংসে কামড় বসাবেন সিঙ্গাপুরবাসী ..

ভারতের চালেই খিদে মিটতে চলেছে চিনাদের, লাদাখ উত্তেজনার মধ্যেই বাণিজ্যনীতিতে বদল বেজিং-এর .

মুম্বই পুলিশ জানিয়েছেন দুর্ঘটনাজনিত মৃত্যুর অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। কুপার হাসরাতালে ময়নাতদন্ত করা হয়েছে। ময়না তদন্তের প্রাথমিক রিপোর্ট অনুযায়ী ছেলেটির গলায় বেলুনটি গভীরভাবে জড়িয়ে গিয়েছিল বলা হয়েছে। ছেলেটির বাড়ি আন্ধেরির গুন্ডাভলিতে। মুম্বইয় বিমান বন্দরের কাছে তাদের একটি ছোট্ট পানের দোকান রয়েছে বলেও জানিয়েছে পুলিশ।