নিজের শহরে একজনকেও অভুক্ত  থাকতে দেন না, সবার কাছে জামাকাপড় পৌঁছে দেন। এভাবেই লোকসভার নতুন অধ্যক্ষ ওম বিড়লার প্রশংসা করলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। প্রধানমন্ত্রীর কথায় ওম বিড়লা একজন রাজনীতিবিদের থেকেও অনেক বড় একজন সমাজসেবক। 

রাজস্থানের কোটা শহরের সাংসদ ওম বিড়লার নাম লোকসভার স্পিকার পদে প্রস্তাব করেছিল বিজেপি। সেই প্রস্তাব এ দিন সর্বসম্মতিক্রমে লোকসভায় পাশ হয়। 

আরও পড়ুুন- নির্বাচিত হলেন স্পিকার, স্বাগত ভাষণে ঝড় তুললেন অধীর

নতুন অধ্যক্ষকে স্বাগত ভাষণে প্রশংসায় ভরিয়ে দেন প্রধানমন্ত্রীর নরেন্দ্র মোদী। তিনি বলেন, রাজস্থানের ছোট্ট শহর কোটাকে গোটা দেশের কাছে পরিচিত করেছেন ওম বিড়লা। নতুন অধ্যক্ষকে একজন রাজনীতিবিদের থেকেও বেশি করে সমাজসেবী বলে দাবি করেন প্রধানন্ত্রী। কীভাবে গুজরাটের ভয়াবহ ভূমিকম্পের সময় ওম বিড়লা সেখানে গিয়ে ত্রানকাজে যোগ দিয়েছেন ওম বিড়লা। সরকারি পরিকাঠামোর সাহায্য না নিয়েই কীভাবে নিজের সহযোগীদের সঙ্গে নিয়ে উদ্ধারকাজে ঝাঁপিয়ে পড়েছিলেন ওম বিড়লা। এর পাশাপাশি কেদারনাথেও প্রাকৃতিক বিপর্যয়ের পরে কীভাবে সেখানেও ওম বিড়লা পৌঁছে গিয়েছিলেন তাঁর প্রশংসাও করেন প্রধানমন্ত্রী। 

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ওম বিড়লা কোটায় অভুক্তদের জন্য মানুষের সাহায্যে বিশেষ প্রকল্প চালু  করেছেন। একই সঙ্গে গরিব, দরিদ্রদের যাতে বস্ত্রের অভাব না হয়, তাঁরা যাতে শরীর খারাপ হলে প্রয়োজনীয় ওষুধ পান, তাও নিশ্চিত করেছেন ওম বিড়লা। 

নতুন অধ্যক্ষের প্রশংসা করতে গিয়ে নরেন্দ্র মোদী বলেন, 'জন আন্দোলনের থেকে বেশি জনসেবার উপরে জোর দিয়েছেন। এমন সংবেদনশীল মানুষ অধ্যক্ষ পদে বসলে প্রত্যেকেই অনুপ্রাণিত হবে। উনি হাসলেও খুব অল্প হাসলেন, কথা বললেও কম বলেন। আমার এক একসময় ভয় লাগে ওনার ভদ্রতার সুযোগ না কেউ নিয়ে নেয়।' নরেন্দ্র  মোদী যখন এভাবে তাঁর প্রশংসা করছেন, তখনও ওম বিড়লার মুখে স্মিত হাসি লেগেছিল। 

প্রধানমন্ত্রী অবশ্য বলেছেন, সংসদের গরিমা রক্ষায় শাসক এবং বিরোধীর মধ্যে যেন কোনও বিভেদ না রাখেন নতুন অধ্যক্ষ। নতুন অধ্যক্ষের কাজ সহজ করার জন্য সবরকম সহযোগিতার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। নতুন অধ্যক্ষকে নিরপেক্ষ থাকার আবেদন জানিয়েছেন কংগ্রেসের দলনেতা অধীর চৌধুরীও।