জাতীয় শিক্ষা নীতি ভারতকে আরও এগিয়ে নিয়ে যাবে। বিশ্বের শিক্ষা ব্যবস্থায় আরও গ্রহণযোগ্য করে তুলবে। গুয়াহাটি আইআইটি কনভোকেশনের অনুষ্ঠানে এমনই বার্তা দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। তিনি বলে, তরুণদের স্বপ্নকে বাস্তব রূপ দিতেই জাতীয় শিক্ষা নীতি বা এনইপি ২০২০ প্রবর্তন করা হয়েছে। আধুনিক এই শিক্ষা ব্যবস্থা শিক্ষার সঙ্গে প্রযুক্তিকে মিলিয়ে দিতে সক্ষম বলও আশা প্রকাশ করেছেন তিনি। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী বলেন, এইনইপিক অধীনে জাতীয় প্রযুক্তি শিক্ষা স্থাপন করা হয়েছে। আর তাতে গবেষণার জন্য পর্যাপ্ত সুযোগ সুবিধে রয়েছে। 

গুয়াহাটি আইআইটি ৩০০ শিক্ষার্থীকে পিএইচডি ডিগ্রি প্রদান করে। যার ভূয়সী প্রশংসা করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। পাশাপাশি করোনাভাইরাস সংক্রমণের প্রতিরোধে এই শিক্ষা প্রতিষ্ঠটনের ভূমিকারও প্রশংসা করেছেন।  তিনি বলেন এই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানটি এই অঞ্চলে বন্যা ও ভূমিধ্বস কমাতে বিশেষ গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা গ্রহণ করবে। পাশাপাশি স্থানীয় প্রকৃতির সম্পদের প্রচারে এই গুরুত্বপূর্ণ মাধ্যম হয়ে দাঁড়াবে। তাঁর কথায় এই শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ওপর আগামী দিনে অনেকটাই নির্ভরশীল হবে প্রশাসন। কারণ আগামী দিনে গুয়াহাটি আইআইটি দুর্যোগ পরিচালনা ও তার ঝুঁকি নিরসনের কেন্দ্র হিসেবে কাজ করবে। অসম ও উত্তর পূর্ব ভারতের একটি সম্ভাবনাময় কেন্দ্র হিসেবে প্রতিষ্ঠা পাবে বলেও আশা প্রকাশ করেছেন নরেন্দ্র মোদী। 

 ভার্চুয়াল এই অনুষ্ঠানে যোগ দিয়েছিলেন অসমের মুখ্যমন্ত্রী সর্বানন্দ সোনোয়াল। তিনিও করোনাভাইরাসের সংক্রমণের বিরুদ্ধে এই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ভূমিকার ভূয়সী প্রশাংসা করেন। কেন্দ্রীয় শিক্ষা মন্ত্রী রমেশ পোরখিয়াল নিশঙ্ক বলেছেন, এই শিক্ষা প্রতিষ্ঠান দেশ ও জাতির গঠনে গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠবে। শিক্ষার্থীদের ভবিষ্যৎ চ্যালেঞ্জের মোকাবিলা করার জন্য প্রস্তুত থাকার আহ্বান জানিয়েছেন তিনি।