বৃহস্পতিবার নতুন করে আরও এক করোনা ভাইরাস আক্রান্তের সন্ধান মিলল ভারতে। উত্তরপ্রদেশের গাজিয়াবাদে সন্ধান মিলেছে  কোভিড-১৯ ভাইরাসে আক্রান্ত ওই ব্যক্তির। জানা গেছে কিছুদিন আগে ইরান থেকে ফিরেছেন তিনি। এদিকে নতুন করে  আক্রান্তের সন্ধান মেলায় ভারতে করোনা রোগীর সংখ্যা দাঁড়াল ৩০। এদের মধ্যে ১৬ জন ইতালিয় পর্যটক হলেও বাকি ১৪ জন ভারতীয় নাগরিক। 

 

 

এদিকে করোনা আতঙ্ক ছড়িয়েছে  জম্মু-কাশ্মীরের শ্রীনগরে। সম্প্রতি করোনা আক্রান্ত দেশ থেকে ফিরেছেন এমন ৫ ব্যক্তির সন্ধান মিলেছে শ্রীনগরে। তারপরেই তাদের এসকেআইএমএস হাসপাতালের আইসোলেশন ওয়ার্ডে রাখা হয়েছে। 

আরও পড়ুন: আড়ালে থাকার পর অবশেষে প্রকাশ্যে, আত্মসমর্পণ বহিষ্কৃত আপ নেতা তাহির হুসেনের

বুধবারই গুরগাঁওয়ের এক পেটিএম কর্মীর দেহে করোনা ভাইরাস মিলেছে। সম্প্রতি ইতালি ভ্রমণ করে ফেরেন তিনি। ওই ব্যক্তির সংস্পর্শে পশ্চিম দিল্লির বাসিন্দা পাঁচ ব্যক্তিকে বর্তমানে বিশেষ নজরদারিতে রাখা হয়েছে। টেস্টের ফল না আসা পর্যন্ত আলাদাই রাখা হবে তাদের। করোনা আতঙ্কের কারণে বর্তমানে দেশের ২৮,৫২৯ জন মানুষকে সারভিলেন্সে রাখা হয়েছে বলে এদিন সংসদে জানান স্বাস্থ্যমন্ত্রী ডক্টর হর্ষবর্ধন। 

আরও পড়ুন: করোনা আক্রান্ত দেশে যাওয়া যাবে না, অধ্যাপক-গবেষক-ছাত্রদের উপর জারি হল নিষেধাজ্ঞা

এই পরিস্থিতিতে মারণ করোনা ভাইরাসের বিস্তার রুখতে লখনউয়ের খোলাবাজারে কাঁচা মাংস, মাছ এবং আধা রান্না করা মাংসের বিক্রির উপর নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে স্থানীয় প্রশাসন। পাশাপাশি হোটেল ও রেস্তোরাঁগুলিকে পরিচ্ছন্নতা বজায় রাখতে ও স্বাস্থ্যবিধি নিশ্চিত করার নির্দেশ দিয়েছেন লখনউয়ের জেলা ম্যাজিস্ট্রেট অভিষেক প্রকাশ। 

 

এদিকে জেলা শাসকের এই সিদ্ধান্তে ক্ষোভ উগরে দিয়েছে কেন্দ্রীয়মন্ত্রী গিরিরাজ সিং। দ্রুত জেলা শাসককে সরকারের সঙ্গে যোগাযোগ করতে বলা হয়েছে। যাতে কোনও রকম গুজব না ছড়ায় সেই দিকেও লক্ষ্য রাখার কথা বলেজেন গিরিরাজ। উল্লেখ্য ডিম, মাংস এবং মাছ থেকে কোভিড-১৯ ভাইরাস ছড়ায় না তা আগেই জানিয়েছে পশুপালন, দুগ্ধ ও দগ্ধজাত উৎপাদন মন্ত্রক।