আত্মহত্যার চেষ্টা করল  নির্ভয়াকাণ্ডে ফাঁসির সাজাপ্রাপ্ত নির্ভয়ার খুনি বিনয় শর্ম। তিহাড় জেলের শৌচালয়ে গলায় দড়ি দিয়ে সে আত্মহত্যার চেষ্টা করে বলে খবর। যদিও শেষ পর্যন্ত পুলিশ তাকে সময়মতো উদ্ধার করে। এমনই দাবি করেছেন বিনয়ের আইনজীবী এ পি সিং। তিহাড় জেল কর্তৃপক্ষ এই ঘটনার কথা অস্বীকার করেছে। 

তিহাড় জেলে চব্বিশ ঘণ্টাই কড়া নজরদারিতে রাখা হয় নির্ভয়াকাণ্ডে ফাঁসির সাজাপ্রাপ্ত চারজনকে। সবসময়ই সিসিটিভি নজরদারিতে রাখা হয় তাদের। চার নম্বর সেলের একটি ঘরে রাখা হয়েছিল বিনয় শর্মার। বুধবার সকালে সেখানেই শৌচালয়ের সিলিং থেকে দড়ি ঝুলিয়ে গলায় দড়ি দিয়ে আত্মহত্যা করার চেষ্টা করে সে। তখনই সেলের নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা পুলিশকর্মীদের নজরে পড়ে যায় বিষয়টি। 

আরও পড়ুন- 'শাস্তি দেওয়া হচ্ছে ', কান্নায় ভেঙে পড়ে গুরুতর অভিযোগ আনলেন নির্ভয়ার মা

আরও পড়ুন- জেলের মধ্যেই লক্ষাধিক রোজগার নির্ভয়ার ধর্ষকদের, নিয়ম ভেঙেছে ২৩ বার

২০১৬ সালেও আত্মহত্যা করার চেষ্টা করেছিল বিনয়। সেবার তাঁকে হাসপাতালেও ভর্তি করতে হয়েছিল। পরে সুস্থ হয়ে ওঠে সে। 

বৃহস্পতিবারই নির্ভয়া কাণ্ডে চার অভিযুক্তকে হাই সিকিউরিটি সেল- এ স্থানান্তরিত করা হয়েছিস। জেলের যেখানে ফাঁসি দেওয়ার জায়গা রয়েছে, তার খুব কাছেই এই হাই সিকিউরিটি সেল। 

ফাঁসির সাজা যে একরকম নিশ্চিত, তা বুঝতে পারার পর থেকেই অস্থির হয়ে উঠেছে বিনয়। জেল সূত্রে খবর, ফাঁসির ভয়ে ঠিক মতো ঘুমোচ্ছেও না সে। মাঝেমধ্যেই জেলের মধ্যে পায়চারি করছে সে। বিনয়ের এই অবস্থা থেকে লাগাতার তার কাউন্সিলিং করে চলেছে জেল কর্তৃপক্ষ। তাদের দাবি, বিনয়ের দিকে খেয়াল রাখা হচ্ছে। 

বিনয় সহ চার সাজাপ্রাপ্তের ফাঁসি কবে হবে, তা নিয়ে এখনও সংশয় রয়েছে। তবে নিয়ম অনুযায়ী ফাঁসি হওয়ার সময় সাজাপ্রাপ্তদের শারীরিক ও মানসিকভাবে সুস্থ থাকতে হবে। একটি মহলের মতে, ফাঁসির সাজা পিছিয়ে দিতে ইচ্ছাকৃতভাবে  বিনয় আত্মহত্যার চেষ্টা করে  থাকতে পারে।