পরের পর পটকা ফাটছে। মিষ্টি মুখের সঙ্গে দিল্লির রাজনীতিতে বিজয়োৎসব পালনে এটাই চেনা দৃশ্য। কিন্তু মঙ্গলবার দিল্লি বিধানসভা নির্বাচনে আপ-এর বিপুল সাফল্যের পরেও দলের সদর দফতরের বাইরে একজন কর্মীকেও বাজি ফাটাতে দেখা যায়নি। সংবাদসংস্থার খবর অনুযায়ী, অরবিন্দ কেজরিওয়ালের নির্দেশেই আপ-এর বিজয়োৎসব থেকে বাদ দেওয়া হয়েছে বাজির ব্যবহার। তবে মিষ্টি বা ব্যান্ড পার্টির মতো আয়োজনে কোনও ঘাটতি ছিল না। 

এমনিতেই ভয়াবহ দূষণের কবলে রয়েছে দিল্লি। প্রতি বছর শীতে দূষণের মাত্রা লাগামছাড়া পর্যায়ে পৌঁছে যায়। লাগামছাড়া দূষণের জন্য দিওয়ালির সময় দিল্লিতে বাজি ফাটানো একটা বড় কারণ বলে মনে করেন বিশেষজ্ঞরা। দিল্লির দূষণে হ্রাস টানতে না পারার জন্য কেজরিওয়াল সরকারকেও পরিবেশ আদালতের রোষের মুখে পড়তে হয়েছে। 

তৃতীয়বার ক্ষমতায় আসা কেজরিওয়াল-এর কাছে দিল্লির দূষণ কমানোই অন্যতম কঠিন চ্যালেঞ্জ। দলের ইস্তেহারেও সেই প্রতিশ্রুতি দিয়েছে আপ। দলের বিজয়োৎসবের মধ্যে দিয়েই যেন সেই কাজটা শুরু করলেন তিনি। দূষণের কথা ভেবেই বিজয়োৎসবে বাজি না পোড়ানোর জন্য দলকে নির্দেশ দিয়েছিলেন তিনি। তাঁর সেই নির্দেশ অক্ষরে অক্ষরে পালন করেছেন আপ কর্মীরাও। তাই ৬২ আসনে জয়ে আনন্দে ঢালাও মিষ্টিমুখ হলেও দিল্লির আইটিও-তে আপ-এর সদর দফতরে পটকার শব্দও শোনা যায়নি বা বাজির ধোঁয়া কোনওটাই দেখা যায়নি।