দেখতে দেখতে ৭৫টি বসন্ত পার করে দিলেন জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা অজিত ডোভাল। ১৯৪৫ সালে  বর্তমান উত্তরাখণ্ডের পাউড়ি গড়ওয়ালে এক গড়ওয়ালি পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। তাঁর বাবা ছিলেন ভারতীয় সেনাবাহিনার মেজর জিএন ডোভাল। অজিত ডোভাল রাজস্থানের  সৈনিক স্কুলেই পড়াশুনা শুরু করেছিলেন। পরবর্তীকালে আগ্রা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে অর্থনীতি নিয়ে মাস্টারস করেন। 

১৯৬৪ সালেই কর্মজীবন শুরু করেন অজিত ডোভাল। সেই বছর ইন্ডিয়ান পুলিশ সার্ভিস বা আইপিএস হয়ে কেরলে কাজ শুরু করেন। তার চার বছর পরেই তিনি ইন্টেলিজেন্স ব্যুরোতে যোগ দান করেন।২০০৫ সালে ফার্স্ট ট্র্যাক ইনটেলিজেন্স অফিসার প্রতিষ্ঠা কেরন। পরবর্তীকালে তিনি ইনটেলিজেন্স ব্যুরোর ডিরেক্টর পদে কাজ করেছিলেন। অবসর গ্রহণের  পাঁচ বছর পরে তাঁকে জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা হিসেবে নিয়োগ করা হয়।   বর্তমানে তিনি প্রধানমন্ত্রীর পঞ্চম নিরাপত্তা উপদেষ্টা।  তিনি একজন ক্যাবিনেট মন্ত্রীর সমান ক্ষমতা ভোগ করেন। 

করোনা-টিকা নেওয়ার পরে তেলাঙ্গনায় স্বাস্থ্যকর্মীর মৃত্যু, কোনও সম্পর্ক নেই বলেই দাবি প্রশাসনের ...

কেন্দ্রের প্রস্তাব বিবেচনার আশ্বাস কৃষকদের, কৃষক আন্দোলনের জট কাটার ইঙ্গিত মন্ত্রীর ...

অজিত ডোভালের কর্মজীবনের টার্নিং পয়েন্ট ছিল তাঁর পাকিস্তানের পোস্টিং। তিনি দীর্ঘ সাত বছর পাকিস্তানে কাটিয়েছেন। সেইসময় তিনি ছদ্মবেশী ভারতীয় এজেন্ট হিসেবে কাজ করছেন। আর সেই কারণেই তাঁকে ভারতীয় জেমস বন্ড বলা হয়। পাকিস্তানের গতিবিধি, আচার আচরণ তিনি নিজের হাতের তালুর মতই চেনেন বলে দাবি করেন তাঁর ঘনিষ্টরা। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর জমানায় তিনি যথেষ্ট গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করছেন জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা হিসেবে। সার্জিক্যাল স্ট্র্রাইক থেকে শুরু করে জম্মু ও কাশ্মীরের ৩৭০ ধারা রদ সবতেই তাঁকে দেখা গেছে সামনের সারিতে। জম্মু ও কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা রদের পর  তিনি কাশ্মীর গিয়েছিলে। সেখানে তিনি কথা বলেছিলেন স্থানীয় বাসিন্দাদের সঙ্গে। আজ জন্মদিনে সোশ্যাল মিডিয়ায় শুভেচ্ছার বন্যায় ভেসেছেন জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা।